বাংলা নিউজ > ময়দান > হাল আমলে শিশিরের জন্য নাকি অনেক ম্যাচ হেরেছে ভারত- আজব দাবি ব্যাটিং কোচের

হাল আমলে শিশিরের জন্য নাকি অনেক ম্যাচ হেরেছে ভারত- আজব দাবি ব্যাটিং কোচের

বিক্রম রাঠোর।

এশিয়া কাপের সুপার ফোর থেকে ভারত ছ'টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক খেলেছে, তিনটিতে হেরেছে এবং তিনটি জিতেছে। যে তিনটি ম্যাচে ভারত হেরেছে, সেটা কিন্তু প্রথমে ব্যাট করেই। নিজেদের দেওয়া লক্ষ্য রক্ষা করতে গিয়েই পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা এবং অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিনটিই পরাজয় বরণ করতে হয়েছে ভারতকে।

টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিকে ভারত বড় স্কোর করেও ম্যাচ হেরে বসে থাকছে। যেমন অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টিতেই২০৮ রান করেও, সেটা রক্ষা করতে পারেনি টিম ইন্ডিয়া। নিঃসন্দেহে যা ভারতীয় দলের কাছে চূড়ান্ত হতাশার। তবে ব্যাটিং কোচ বিক্রম রাঠোর এর জন্য আশ্চর্যজনক ভাবে শিশিরকে একটি কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেনয যদিও সেটা এশিয়া কাপের সময় ছিল না। এশিয়া কাপের সুপার ফোর থেকে ভারত ছ'টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক খেলেছে, তিনটিতে হেরেছে এবং তিনটি জিতেছে।

যে তিনটি ম্যাচে ভারত হেরেছে, সেটা কিন্তু প্রথমে ব্যাট করেই। নিজেদের দেওয়া লক্ষ্য রক্ষা করতে গিয়েই পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা এবং অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিনটিই পরাজয় বরণ করতে হয়েছে ভারতকে। এমন কী এশিয়া কাপে পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে হারের পর কেউই শিশিরকে দায়ী করেননি।

আরও পড়ুন: এখনও T20 WC-এর মূল দলে ঢুকতে পারেন মহম্মদ শামি, জেনে নিন ICC-র নিয়ম

তিরুবনন্তপুরমের গ্রিনফিল্ড ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আগে এক সংবাদিক সম্মেলনে রাঠোর বলেন, ‘আমরা লক্ষ্য রক্ষা করার দিকটি নিয়ে আরও ভালো করার কাজ করছি। তবে আমাদের বোলারদের জন্য টস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল। যে ক'বার আমরা লক্ষ্য রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছি, তার বড় কারণ হল শিশির। শিশিরের জন্যই রান তাড়া করা সহজ হয়ে গিয়েছিল।’

রাঠোর সম্ভবত মোহালিতে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচের কথা উল্লেখ করছিলেন, যেখানে ভারত ২০০-এর বেশি লক্ষ্য রক্ষা করতে ব্যর্থ হয়েছিল। এতে বোলারদের নিয়ে তীব্র সমালোচনা হয়েছিল। বিক্রম রাঠোর অবশ্য বোলারদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছে।

বোলারদের রক্ষণ

ভারতের প্রাক্তন টেস্ট ওপেনার বলেছেন, ‘আমি বোলারদের প্রতি কঠোর পন্থা অবলম্বন করব না। কারণ তারা প্রতি বারই শেষ ওভার পর্যন্ত ম্যাচটি নিতে সক্ষম হয়েছে, যখন আমরা লক্ষ্য রক্ষা করছিলাম। অবশ্যই আমরা খুব ভালো করছি, তবে আশা করছি আমরা আরও ভালো করব।’

আরও পড়ুন: বড় বড় কোহলির কাটআউট, T20 WC-এ ভারত-পাক ম্যাচের জন্য সাজছে MCG

ক্রিজে থাকা ব্যাটসম্যানরা সম্ভাব্য লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছেন কিনা, জানতে চাইলে রাঠোর জবাব দেন, ‘অবশ্যই, এটা নির্ভর করে আমরা কোন সারফেসে খেলছি। কিন্তু আপনি যখন বলেন আমরা ভালো স্কোর করছি না। যদি তাই হয়, আমি তাতে একমত নই। আমি মনে করি, গত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথমে ব্যাট করাটা একটা উদ্বেগের বিষয় ছিল। কিন্তু তার পর থেকে যখনই আমরা প্রথমে ব্যাট করেছি, আমরা প্রতিযোগিতামূলক স্কোর বা তার চেয়ে ভালো স্কোর করেছি। তাই আমি মনে করি না, এটা কোনও সমস্যা।’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলোয়াড়দের আরও বেশি সুযোগ দেওয়ার বিষয়ে অগ্রাধিকার

ব্যাটিং কোচ আরও বলেন, টিম ম্যানেজমেন্ট কখনও-ই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা খেলোয়াড়দের কোচিং করার চেষ্টা করে না, বরং তাদের শক্তিশালী দিক অনুযায়ী খেলতে উৎসাহিত করে। আর্শদীপ সিংয়ের মতো একজন খেলোয়াড়কে সব সময়ে তাঁর পরিকল্পনা অনুযায়ী যেতে বলা হয়। রাঠোরের দাবি, ‘এই পর্যায়ে আমরা তাদের কিছুই করছি না। আর্শ (অর্শদীপ সিং) আইপিএলে ডেথ ওভারে খুব ভালো করেছে, তাই আমরা ওকে শুধুমাত্র পরিকল্পনা অনুসরণ করতে সমর্থন করি। ওরা জানে, প্রতিটি ব্যাটসম্যানকে কোথায় বল করতে হবে এবং তাদের পরিকল্পনা অনুসরণ করতে হবে।’

কেএল রাহুল, রোহিত শর্মা এবং বিরাট কোহলি সমন্বিত ভারতীয় টপ-অর্ডার, টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিকে পুরানো পদ্ধতির জন্য প্রচুর সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছিল। কিন্তু রাঠোর গত আইসিসি টুর্নামেন্ট থেকে মানসিকতার পরিবর্তন নিয়ে খুশি। তিনি বলেন, ‘আমরা যে ভাবে ব্যাটিং করছি, তাতে বোঝা যায় একটা স্পষ্ট পরিবর্তন এসেছে। মনোভাব পরিবর্তিত হয়েছে, আমরা আরও আক্রমণাত্মক হওয়ার চেষ্টা করছি। আমরা আরও ভালো স্ট্রাইক রেট এবং আরও বেশি আবেগ নিয়ে খেলছি, এটা বেশ পরিষ্কার। ব্যাটিং ইউনিট হিসেবে আমরা ভালো করেছি।’

রাঠোর আরও যোগ করেছেন, ‘আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হবে, অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়া। যারা বিশ্বকাপে খেলবে আমরা তাদের সর্বোচ্চ সুযোগ দিতে চাই কিন্তু কী ভাবে হবে, সেটা নির্ভর করছে ম্যাচের পরিস্থিতির উপর।’

বন্ধ করুন