বাড়ি > ময়দান > ঐতিহ্যের লাল-হলুদ জার্সি ও লোগোর মশাল বদলাবে না, ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের আশ্বাস দিলেন স্পনসররা
লাল-হলুদ সমর্থকদের উচ্ছ্বাস। ছবি- সোশ্যাল মিডিয়া।
লাল-হলুদ সমর্থকদের উচ্ছ্বাস। ছবি- সোশ্যাল মিডিয়া।

ঐতিহ্যের লাল-হলুদ জার্সি ও লোগোর মশাল বদলাবে না, ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের আশ্বাস দিলেন স্পনসররা

  • যদিও নামের আগে স্বীকৃতি চান, ইঙ্গিত দিলেন বিনিয়োগকারী সংস্থার কর্ণধার।

এটিকের সঙ্গে জোট বাঁধার পর মোহনবাগান সমর্থকদের দুশ্চিন্তা ছিল কয়েকটা বিষয় নিয়ে। ক্লাবের নাম, লোগো ও জার্সির রং বদলে যাবে না তো? এই সব আশঙ্কা দানা বেঁধে ছিল, যতদিন না প্রথম বোর্ড মিটিংয়ে ছবিটা স্পষ্ট হয়ে যায়। এবার ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের সামনে পরিস্থিতিটা হুবহু একই রকম। দল আইএসএল খেলার সুযোগ পেলেও নতুন স্পনসরদের হাতে ক্লাবের সিংহভাগ মালিকানা চলে যাচ্ছে। এই অবস্থায় ইস্টবেঙ্গল নাম এবং আবেগের লাল-হলুদ রং বজায় থাকবে তো? আপাতত এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে সমর্থকদের মনে।

স্পনসরদের তরফে অবশ্য শুরুতেই নিশ্চিন্ত করা হলো সমর্থকদের। বিনিয়োগকারী সংস্থা শ্রী সিমেন্টের কর্ণধার হরি মোহন বাঙ্গুর সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, ইস্টবেঙ্গল অনুরাগীদের দুশ্চিন্তার কোনও কারণ নেই। ক্লাবের নামে স্পনসর হিসেবে নিজেদের স্বীকৃতি অবশ্যই চান তাঁরা। তবে ইস্টবেঙ্গলকে সরিয়ে কখনই নয়। অর্থাৎ, ইস্টবেঙ্গল নাম যথারীতি বজায় রাখা হবে। ধরে রাখা হবে ১০০ বছরের ঐতিহ্য লাল-হলুদ জার্সি এবং লোগোও।

বাঙ্গুর জানালেন, ইস্টবেঙ্গলের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনাই হবে তাঁদের প্রধান লক্ষ্য। তিনি বলেন, ‘ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের একটা কথা অবশ্যই জেনে রাখা উচিত, আমরা ক্লাবের পুরনো ঐতিহ্য আবার ফিরিয়ে আনব। আমাদের প্রধান লক্ষ্যই হবে অতীতের গৌরব পুনরায় প্রতিষ্ঠা করা।’

ক্লাবের নাম ও জার্সির রং প্রসঙ্গে বাঙ্গুর বলেন, ‘আমরা নাম নিয়ে এখনও কিছু ঠিক করিনি। তবে ইস্টবেঙ্গল অবশ্যই নামের প্রধান অংশ থাকবে। যদিও আমরা নিজেদেরও স্বীকৃতি চাই কোথাও একটা। আমরা চিরাচরিত ঐতিহ্যকে বজায় রাখব। জার্সির রং ও লোগোকেও আমরা পূর্ণ স্বীকৃতি দেব। আমরা ক্লাবের সবকিছুকেই অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করব।’

বন্ধ করুন