বাংলা নিউজ > টেকটক > লাল তারার মৃত্যু, প্রথমবার সুপারনোভা দৃশ্যের সাক্ষী বিজ্ঞানীরা
প্রতীকী ছবি : টুইটার (Adam Makarenko/WM Keck Observatory)
প্রতীকী ছবি : টুইটার (Adam Makarenko/WM Keck Observatory)

লাল তারার মৃত্যু, প্রথমবার সুপারনোভা দৃশ্যের সাক্ষী বিজ্ঞানীরা

  • তারাটি পৃথিবী থেকে প্রায় ১২০ মিলিয়ন আলোকবর্ষ দূরের এক মন্ডলীতে অবস্থিত। আমাদের সূর্যের চেয়ে ১০ গুণ বড়।

প্রথমবার। লাল সুপারজায়ান্টস তারার সুপারনোভায় রূপান্তরের সাক্ষী থাকলেন বিজ্ঞানীরা।

বিশাল বিস্ফোরণের প্রায় ১৩০ দিন আগে থেকেই এই নক্ষত্রটির পর্যবেক্ষণ করছিলেন বিজ্ঞানীরা। তারাটি পৃথিবী থেকে প্রায় ১২০ মিলিয়ন আলোকবর্ষ দূরের এক মণ্ডলীতে অবস্থিত। আমাদের সূর্যের চেয়ে ১০ গুণ বড়। সুপারনোভার নাম দেওয়া হয়েছে (SN) 2020tlf । 

ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটি, বার্কলে-এর জ্যোতির্বিজ্ঞানী এবং গবেষণার প্রধান লেখক উইন জ্যাকবসন-গ্যালান বলেন, 'এটি বিশাল নক্ষত্রর মৃত্যুর আগে ঠিক কী হয় তা আমাদের বুঝতে সাহায্য করবে।'

মহাকর্ষ বল এবং পারমাণবিক বিক্রিয়াকে ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য যখন বিশাল নক্ষত্র মারা যায়, বা জ্বালানি ফুরিয়ে যায় এবং নিজেদের মধ্যে ভেঙে পড়ে তখন সুপারনোভা ঘটে। একটি দৈত্যাকার, অতি-উজ্জ্বল বিস্ফোরণ পতনের পরে, মহাকাশে শক ওয়েভ পাঠায় এবং সাধারণত নীহারিকা নামক গ্যাসের মেঘ দ্বারা বেষ্টিত একটি ঘন কোর ছেড়ে যায়।

যখন বিশাল নক্ষত্র জ্বলতে জ্বলতে শেষ হয়ে যায়, তখন সেটি কার্যত বিস্ফোরণের মাধ্যমে নিজের মধ্যেই ভেঙে পড়ে। সেই সময়ে সুপারনোভা ঘটে। দৈত্যাকার, অতি-উজ্জ্বল বিস্ফোরণের পরে, মহাকাশে শক ওয়েভ পাঠায় এবং সাধারণত গ্যাসের মেঘ দ্বারা বেষ্টিত একটি ঘন কোর ছেড়ে যায়। এই গ্যাসের কোরকে 'নেবুলা' বলা হয়।

বন্ধ করুন