বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > হাসপাতাল থেকে ছুটির ৮দিনেই চাকরিতে যোগ রেণুর, হাত কেটেও রুখতে পারেনি স্বামী
চাকরিতে যোগ দিলেন রেণু খাতুন, বাধা পেরিয়ে স্বপ্নপূরণ। (সংগৃহীত)

হাসপাতাল থেকে ছুটির ৮দিনেই চাকরিতে যোগ রেণুর, হাত কেটেও রুখতে পারেনি স্বামী

  • অদম্য জেদ। মনের জোর রেণুর। মঙ্গলবার যখন রেণু খাতুন যোগ দিলেন সেই নার্সের চাকরিতেই তখন তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ স্বাস্থ্য দফতরের কর্মী আধিকারিকরা।

গত ৪ জুন। সেই রাতের কথা হয়তো কোনওদিন ভুলবেন না পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামের রেণু খাতুন। যাকে ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন সেই স্বামী সেদিন রেণুর হাতের কব্জি থেকে কেটে নিয়েছিল। আর একটি তারিখ রেণুর মনে চিরদিন গাঁথা থাকবে, সেটা ২১ জুন। এদিনই তিনি যোগ দিলেন  গ্রেড ২ নার্সের পদে। পূর্ব বর্ধমান জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের দফতরে তিনি এদিন কাজে যোগ দেন। স্বাস্থ্য দফতরের কর্মী আধিকারিকরা তাঁকে সংবর্ধনা দেন ফুল দিয়ে। তিনি মুখ্য স্বাস্থ্য় আধিকারিক প্রণব রায়ের থেকে কাজের দায়িত্ব বুঝে নেন।

আপাতত মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের দফতরেই কাজ করবেন তিনি। ৪ জুন থেকে ২১ জুন। লড়াই শেষে কিছুটা হলেও আলোর ঠিকানায় পৌঁছালেন রেণু। অভিযুক্ত স্বামীকে পুলিশ ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে। অভিযোগ, ওই স্বামীই চাইতেন না স্ত্রী সরকারি চাকরি করুক। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরে নার্স পদে চাকরি পাওয়ার খবর শুনেই রেণুর হাত কেটে নিয়েছিলেন স্বামী শেখ মহম্মদ। তবে তিনি অবশ্য বর্তমানে পরকিয়ার অভিযোগ করছেন রেণুর বিরুদ্ধে।

কিন্তু সব ঝড় ঝঞ্ঝা সামলে রেণু অবশেষে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরে চাকরিতে যোগ দিলেন। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার আটদিনের মাথায় কাজে যোগ দিলেন রেণু। হাত কেটে দেওয়ায় পদে পদে প্রতিবন্ধকতা। তবুও সেই সব বাধাকে জয় করে অদম্য মনের জোর নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন রেণু। তিনি এদিনও মুখ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার ইচ্ছাও প্রকাশ করেন তিনি।

 

বন্ধ করুন