বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Student Credit Card application: কীভাবে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের আওতায় লোনের জন্য আবেদন? দেখে নিন পুরো প্রক্রিয়া
বুধবার সরকারিভাবে ‘স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’ প্রকল্পের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য ভিডিয়ো)
বুধবার সরকারিভাবে ‘স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’ প্রকল্পের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য ভিডিয়ো)

Student Credit Card application: কীভাবে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের আওতায় লোনের জন্য আবেদন? দেখে নিন পুরো প্রক্রিয়া

  • সেই প্রকল্পের আওতায় ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন পড়ুয়ারা। ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া।

উচ্চ শিক্ষার জন্য পড়ুয়াদের সামনে নয়া দিগন্তের উন্মোচন করল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। বুধবার সরকারিভাবে ‘স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড’ প্রকল্পের সূচনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই প্রকল্পের আওতায় ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ নিতে পারবেন পড়ুয়ারা। ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া।

কীভাবে ঋণ বা লোনের জন্য অনলাইনে আবেদন করবেন?

১) রাজ্য সরকারের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট (www.wb.gov.in) বা banglaruchchashiksha.wb.gov.in-তে যান। অথবা সরাসরি https://wbscc.wb.gov.in/-তে যান।

২) ‘Student Registration’-এ ক্লিক করুন।

৩) একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। সেখানে বিভিন্ন তথ্য দিতে হবে।

৪) সেখানে নিজের নাম, ঠিকানা, মোবাইল নম্বর, ইমেল আইডি-সহ বিভিন্ন তথ্য দিতে হবে। আধার কার্ড থাকা বা না থাকার ভিত্তিতে সেই রেজিস্ট্রেশন ফর্ম ভিন্ন হবে। পাসওয়ার্ডও দিতে হবে। তারপর ‘Register’-এ ক্লিক করতে হবে।

৫) যে ফোন নম্বর দেওয়া হয়েছে, তাতে ওটিপি যাবে। সেই ওটিপি লিখে 'Verify' করতে হবে।

৬) রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে স্ক্রিনে একটি 'Registration ID' আসবে। ফোনেও লগইন সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য পাঠানো হবে।

৭) wbscc.wb.gov.in/ -তে গিয়ে Student Login-তে ক্লিক করুন। নয়া একটি পেজ খুলে যাবে।

৮) সেই রেজিস্ট্রেশন আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে হবে। 

৯) 'Dashboard' খুলে যাবে। সেখানে 'Apply Now'-তে ক্লিক করুন।

১০) একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। সেখানে বিভিন্ন তথ্য দিতে হবে। আধার কার্ড থাকা বা না থাকার ভিত্তিতে সেই রেজিস্ট্রেশন ফর্ম ভিন্ন হবে। পাশাপাশি ‘Download Undertaking Documents’ থাকবে। পড়ুয়াদের প্যান কার্ড না থাকলে ‘Download Undertaking Documents’ ডাউনলোড করতে হবে। ঠিকানা, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট-সহ যাবতীয় তথ্য দেওয়ার পর ‘Save & Continue’ করুন।

১১) তারপর একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। আধার কার্ড থাকা বা না থাকার ভিত্তিতে সেই ফর্ম ভিন্ন হবে। আধার কার্ড থাকলে সেখানে আবেদনকারীর ছবি, সহ-আবেদনকারীর ছবি, আবেদনকারীর স্বাক্ষর, সহ-আবেদনকারী বা অভিভাবকের স্বাক্ষর, আধার কার্ড, সহ-আবেদনকারীর ঠিকানার প্রমাণপত্র (ভোটার আইডি), আবেদনকারীর ভরতির রসিদের ছবি, প্যান কার্ড, সহ-আবেদনকারীর প্যান কার্ড, আবেদনকারীর কোর্স ফি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নথি আপলোড করতে হবে। 

আধার কার্ড না থাকলে সেখানে আবেদনকারীর ছবি, সহ-আবেদনকারীর ছবি, আবেদনকারীর স্বাক্ষর, সহ-আবেদনকারী বা অভিভাবকের স্বাক্ষর, দশম শ্রেণির রেজিস্ট্রেশন, সহ-আবেদনকারীর ঠিকানার প্রমাণপত্র (ভোটার আইডি), আবেদনকারীর ভরতির রসিদের ছবি, প্যান কার্ড, সহ-আবেদনকারীর প্যান কার্ড, আবেদনকারীর কোর্স ফি সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় নথি আপলোড করতে হবে।

১২) যাবতীয় নথি আপলোডের পর ‘Save & Continue’ করুন।

১৩) একটি নয়া পেজ খুলে যাবে। সেখানে যাবতীয় নথি এবং তথ্য মিলিয়ে দেখে নিন। তারপর 'Submit Application' ক্লিক করুন। কোনও তথ্য বা নথি পরিবর্তন করতে হলে 'Edit Loan application'-এ ক্লিক করতে হবে। একবার সাবমিট হয়ে গেলে তথ্য পালটানো যাবে না।

১৪) তারপর 'Dashboard'-এ দেখাবে 'Application Submitted to HOI'। তার অর্থ হল যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাছেই আবেদনপত্র চলে গিয়েছে।

১৫) স্কুলের তরফে আবেদনপত্র পাঠানো হবে উচ্চ শিক্ষা দফতরকে। তখন 'Dashboard'-এ দেখাবে 'Application forwarded by to HOI to HED'।

রাজ্য সরকারের তরফে আবেদনপত্র পূরণের নির্দেশিকা

কী কী সুবিধা মিলবে?

যাঁরা টানা ১০ বছর এই রাজ্যে রয়েছেন তাঁরাই এই সুবিধা পেতে পারেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ৪০ বছর পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীরা এই ঋণ নিতে পারবেন। চাকরি পাওয়ার পর ১৫ বছরে অত্যন্ত কম সুদে সেই টাকা পরিশোধ করার সুযোগ থাকবে। দশম শ্রেণি থেকেই ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পের সুবিধা মিলবে।

বন্ধ করুন