বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'এটা কোনও গ্রন্থাগারই নয়', দুঃস্থদের সরকারি 'লাইব্রেরি'-তে হল তৃণমূলের কর্মিসভা
সরকারি গ্রন্থাগার ভবনে তৃণমূলের দলীয় কর্মীসভা, বিতর্কে জড়াল তৃণমূল। ছবিটি প্রতীকী।

'এটা কোনও গ্রন্থাগারই নয়', দুঃস্থদের সরকারি 'লাইব্রেরি'-তে হল তৃণমূলের কর্মিসভা

  • পুরনিগমের কম্পিটিটিভ লাইব্রেরিতে দলীয় কর্মীসভা করা নিয়ে বিতর্কে জড়াল তৃণমূল। আর এ নিয়ে শুরু হয়ে গেছে রাজনৈতিক তরজা।

পুরভোটের দামামা বেজে উঠেছে। কলকাতা পুরসভার ভোটের নির্ঘণ্ট জারি হতেই কোমর বেঁধে প্রচারে নেমে পড়েছেন সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা। রাজ্যের অন্যান্য পুরসভাগুলোতেও ভোট খুব দ্রুতই হতে চলেছে। আর তার আগেই আসানসোল পুরনিগম নিয়ে বিতর্কে জড়াল তৃণমূল। পুরনিগমের কম্পিটিটিভ লাইব্রেরিতে দলীয় কর্মীসভা করা নিয়ে বিতর্কে জড়াল তৃণমূল। আর এ নিয়ে শুরু হয়ে গেছে রাজনৈতিক তরজা।

উল্লেখ্য, দুঃস্থ পড়ুয়াদের প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার প্রস্তুতি করার জন্য আসানসোল পুরনিগমে তৈরি করা হয়েছিল কম্পিটিটিভ লাইব্রেরি। পুরসভার ৬০ টি ওয়ার্ডেই এই লাইব্রেরি তৈরি করা হয়। কিন্তু, ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের ওই গ্রন্থাগারে তৃণমূল নিয়মিত সভা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কেন সরকারি গ্রন্থাগার ভবনকে দলীয় কর্মিসভার জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধীরা।

বুধবারও ওই গ্রন্থাকারে জেলা তৃণমূল চেয়ারম্যান উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে এটি কর্মিসভার আয়োজন হয়। যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতা শিবদাস রায়ের দাবি, 'এটি কোনও গ্রন্থাগার নয়। পুরসভার অনুমতিতে এখানে সভার আয়োজন করা হয়।' পুরপ্রশাসক অমরনাথ চট্টোপাধ্যায় সেটিকে গ্রন্থাগার বলে দাবি করতে অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, 'সেটিকে গ্রন্থাগার করার কথা থাকলেও তা এখনও হয়ে ওঠেনি। '

অন্যদিকে, এ নিয়ে তৃণমূলকে আক্রমণ করতে ছাড়েনি বিজেপি। বিজেপি নেতা জিতেন্দ্র তিওয়ারি দাবি করেন, ওই গ্রন্থাগারের উদ্বোধন তিনি করেছিলেন। কিন্তু তৃণমূল মনে করে এসব দরকার নেই। তাদের কাছে পার্টি করা তাই মূল বিষয়।'

বন্ধ করুন