বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Electrocution:‌ প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট, বাঁকুড়ায় মৃত্যু হল দু’‌জনের

Electrocution:‌ প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট, বাঁকুড়ায় মৃত্যু হল দু’‌জনের

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে দু’জনের।

পর পর দুটি দেহ পড়ে থাকতে দেখে গ্রামবাসীরা ছুটে আসেন। লাঠি দিয়ে কোনওরকমে তার সরানো হয়। তারপর দু’জনকে বাঁকুড়া সম্মেলনী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে চিকিৎসকরা জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। ঝড়বৃষ্টি হলেই এলাকায় বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে যায়।

কলকাতার হরিদেবপুরের ছায়া এবার বাঁকুড়া জেলায়। প্রবল বৃষ্টির জেরে বিদ্যুতের খুঁটির তার ছিঁড়ে রাস্তায় পড়েছিল। প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে তাতেই পা জড়িয়ে যায় মহিলার। তৎক্ষনাৎ হয়ে ছটফট করে মৃত্যু হয় তাঁর। আর গ্রামের এই চেনা মহিলাকে রাস্তায় লুটিয়ে পড়ে থাকতে দেখে ছুটে যান এক প্রৌঢ়। মহিলাকে স্পর্শ করতেই লুটিয়ে পড়েন তিনিও। বাঁকুড়ার ২ নম্বর ব্লকের ভূতশহর গ্রামে এভাবেই একসঙ্গে দু’‌জনের মৃত্যু হল।

ঠিক কী ঘটেছে বাঁকুড়ায়?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, পর পর দুটি দেহ পড়ে থাকতে দেখে গ্রামবাসীরা ছুটে আসেন। লাঠি দিয়ে কোনওরকমে তার সরানো হয়। তারপর দু’জনকে বাঁকুড়া সম্মেলনী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে চিকিৎসকরা জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয়েছে দু’জনের। ঝড়বৃষ্টি হলেই এলাকায় বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে যায়। তা সত্ত্বেও বিদ্যুৎ দফতর উদাসীন বলে অভিযোগ স্থানীয় গ্রামবাসীদের।

পুলিশ কী তথ্য পেয়েছে?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত দু’‌জনের নাম পার্বতী ঘোষ এবং অনন্ত ঘোষ। প্রাতঃভ্রমণে বের হন পার্বতী ঘোষ। বৃষ্টিতে ছিঁড়ে পড়া বিদ্যুৎবাহী তারে পা জড়িয়ে যায় পার্বতী ঘোষের। সঙ্গে সঙ্গেই বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়। ওই মহিলাকে পড়ে থাকতে দেখে বাঁচাবার উদ্দেশে এসে স্পর্শ করলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় অনন্ত ঘোষ নামে এক ব্যক্তির। দেহ দুটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৬ জুন বৃষ্টির মাঝে জমা জলে বিপত্তি ঘটে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায় এক কিশোর। হরিদেবপুরে কেইআইআইপির কাজ চলছিল। আর বৃষ্টিতে সেখানে জল দাঁড়িয়ে যায়। সেদিন সন্ধ্যে ৬টা নাগাদ টিউশন থেকে ফেরার পথে জমা জল পার করতে গিয়ে ল্যাম্পপোস্টে হাত লাগে ছেলেটির। সঙ্গে সঙ্গে ছিটকে জলে পড়ে যায় এবং মৃত্যু হয়।

বন্ধ করুন