বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > করোনা বিধি ভেঙে বর্ষবরণের রাতে পুলিশের খাতায় নাম প্রায় ২০০ জনের
বর্ষবরণের রাতে ভিড় কলকাতায়। (ছবি সৌজন্য, ফেসবুক @kolkatapoliceforce)
বর্ষবরণের রাতে ভিড় কলকাতায়। (ছবি সৌজন্য, ফেসবুক @kolkatapoliceforce)

করোনা বিধি ভেঙে বর্ষবরণের রাতে পুলিশের খাতায় নাম প্রায় ২০০ জনের

  • সবমিলিয়ে বিভিন্ন কারণে ৫০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।

করোনাভাইরাস বিধি মেনে বর্ষবরণের আর্জি জানানো হয়েছিল। তা অমান্য করলে কড়া ব্যবস্থার হুঁশিয়ারিও ছিল। তা সত্ত্বেও বর্ষবরণের রাতে জনতার একাংশ তুড়ি মেরে সেই বিধি উড়িয়ে দিয়েছিলেন। সেজন্য প্রায় ২০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করল কলকাতা পুলিশ। সবমিলিয়ে বিভিন্ন কারণে ৫০০ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।

এমনিতেই অভব্য আচরণ, গতি বিভিন্ন কারণে বর্ষবরণের রাতে একাধিক মামলা দায়ের হয়। এবার সেই তালিকায় যুক্ত হয়েছে করোনাভাইরাসের সুরক্ষা বিধি লঙ্ঘন।  কলকাতা পুলিশের এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, বিভিন্ন কারণে ৫০০ জনেরও বেশি মানুষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তাঁর কথায়, ‘মাস্ক না পরা এবং রাস্তায় থুতু ফেলার জন্য বৃহস্পতিবার (গত ৩১ ডিসেম্বর) রাত ১১ টা পর্যন্ত ১৯৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে পুলিশ। অভব্য আচরণের জন্য আরও ৩২৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।’ 

বড়দিনেও একই কারণে ৫৫৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছিল। করোনা বিধি ভঙ্গ করে পুলিশের খাতায় নাম উঠেছিল ২২৩ জনের। সেই পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে করোনা বিধি পালনের উপর আরও জোর দেওয়া হয়েছিল। তারইমধ্যে বর্ষবরণের রাতে কোথাও বড় জমায়েত যাতে না হয়, তা রাজ্য সরকারকে নিশ্চিত করার নির্দেশ দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্ট। সেইমতো বাড়তি বাহিনী মোতায়েন করেছিল কলকাতা পুলিশ। দিল্লি, মুম্বইয়ের মতো বর্ষবরণের রাতে কার্ফু জারি করা না হলেও রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের তরফে একগুচ্ছ নিয়মাবলী জারি করা হয়েছিল। স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তা বলেন, ‘মানুষকে মাস্ক পরা এবং রাস্তায় কোনও বস্তুতে হাত দেওয়ার পর স্যানিটাইজার ব্যবহার, বদ্ধ জায়গায় পার্টি করা ও ভিড় এড়াতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন না করা এবং রাস্তায় থুতু না ফেলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল।’

বন্ধ করুন