বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অর্ধেকের বেশি খরচ হয়নি পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের প্রথম কিস্তির টাকা! চিন্তায় রাজ্য

অর্ধেকের বেশি খরচ হয়নি পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের প্রথম কিস্তির টাকা! চিন্তায় রাজ্য

অর্থ কমিশনের টাকা খরচ করতে উদ্যোগী নবান্ন। (টুইটার)

পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের যে প্রথম কিস্তির টাকা পড়ে রয়েছে তারমধ্যে শৌচালয়, পানীয় জল থেকে শুরু করে অন্যান্য সংস্কারমূলক কাজের ক্ষেত্রে অনেক বেশি টাকা পড়ে রয়েছে। যার পরিমাণ হল ১৫২৭ কোটি টাকা। অন্যান্য খাতের জন্য ৯১৯ কোটি টাকা ২৬ লক্ষ টাকা পড়ে রয়েছে।

দ্রুতই পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের পক্ষ থেকে গ্রামাঞ্চলে উন্নয়নের জন্য দ্বিতীয় কিস্তির টাকা আসতে চলেছে। কিন্তু, এখনও প্রথম কিস্তির অধিকাংশ টাকা খরচ করতে পারেনি জেলাগুলি। নিয়ে উদ্বিগ্ন নবান্ন। সূত্রের খবর, মাত্র ৫০.৪৬ শতাংশ অর্থ এখনও খরচ হয়নি। প্রথম কিস্তির মোট ২৪৪৬ কোটি ৪৬ লক্ষ টাকা এখনও পড়ে রয়েছে। তাই দ্বিতীয় কিস্তির টাকা আসার আগেই সেই সমস্ত টাকা খরচের জন্য উদ্যোগ নিয়েছে পঞ্চায়েত দফতর।

নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের যে প্রথম কিস্তির টাকা পড়ে রয়েছে সেগুলি শৌচালয়, পানীয় জল থেকে শুরু করে অন্যান্য সংস্কারমূলক কাজের ক্ষেত্রে খরচ করার কথা। যার পরিমাণ হল ১৫২৭ কোটি টাকা। অন্যান্য খাতের জন্য ৯১৯ কোটি টাকা ২৬ লক্ষ টাকা পড়ে রয়েছে। তবে সামনে যেহেতু পঞ্চায়েত ভোট তাই নির্বাচনকে সামনে রেখে এই সমস্ত টাকা নির্দিষ্ট প্রকল্পের জন্য পঞ্চায়েতগুলিকে খরচ করতে বলেছে রাজ্য সরকার।

ইতিমধ্যেই দ্বিতীয় কিস্তির জন্য ১৬০০ কোটিরও বেশি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। প্রথম কিস্তির পড়ে থাকা টাকা খরচ করার পাশাপাশি দ্বিতীয় কিস্তির টাকা হাতে পাওয়া মাত্রই খরচ করার জন্য উদ্যোগী হয়েছে পঞ্চায়েত দফতর। এর জন্য ইতিমধ্যেই পঞ্চায়েত দফতরের পক্ষ থেকে জেলাগুলিকে প্রকল্প চিহ্নিত করে যাবতীয় কাজ এগিয়ে রাখতে বলা হয়েছে। ৯ জানুয়ারির মধ্যে ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েতের সাধারণ সভায় এই প্রকল্পগুলি অনুমোদন করাতে হবে। এরপর ১৪ জানুয়ারি টেন্ডার ডেকে বাকি কাজ শেষ করতে হবে। 

অন্যদিকে, রাজ্য কেন টাকা খরচ করছে না, তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। এ নিয়ে সম্প্রতি মুখ্যসচিব পঞ্চায়েতের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। সাধারণত কেন্দ্রের কাছ থেকে এই টাকা পেয়ে থাকে রাজ্য। কোনও বছরে খরচ কম হয়ে থাকলে পরের বছরে বরাদ্দও কমে যায়। মূলত পানীয় জল, সানিটেশন প্রকল্পে এই টাকা খরচ করতে হয়। তা পঞ্চায়েতে বেতন, প্রশাসনিক কোনও কাজ বা পরিবহণ সংক্রান্ত কোনও কাজে খরচ করা যায় না।

বন্ধ করুন