বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > পুজোর আগেই চালু হচ্ছে টালা ব্রিজ, জানালেন নতুন পূর্তমন্ত্রী
নতুন টালা ব্রিজের মডেল।

পুজোর আগেই চালু হচ্ছে টালা ব্রিজ, জানালেন নতুন পূর্তমন্ত্রী

  • ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর রাতে বন্ধ করে দেওয়া হয় টালা ব্রিজ। তার আগেই ব্রিজের ওপর ভারী যানচলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। টালা ব্রিজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কাশীপুর লেভেল ক্রসিং দিয়ে চলাচল করছিল যানবাহন।

পুজোর আগেই খুলতে চলেছে কলকাতার টালা ব্রিজ। এমনই জানিয়েছেন রাজ্যের নবনিযুক্ত পূর্ত মন্ত্রী পুলক রায়। শেষ মুহূর্তের কিছু কাজ শেষ হলেই রেলের অনুমতি নিয়ে ব্রিজ চালু করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। এই ব্রিজ বন্ধ থাকায় উত্তর কলকাতার থেকে উত্তর শহরতলিতে যেতে অতিরিক্ত সময় লাগছে। সব চেয়ে বেশি ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে মালবাহী গাড়ির চালকদের।

২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর রাতে বন্ধ করে দেওয়া হয় টালা ব্রিজ। তার আগেই ব্রিজের ওপর ভারী যানচলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। টালা ব্রিজ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কাশীপুর লেভেল ক্রসিং দিয়ে চলাচল করছিল যানবাহন। বাগবাজার উড়ালপুল দিয়ে চলছে ছোট গাড়ি। কিন্তু তাতে ব্যস্ত সময় বাড়তি সময় লাগছে। বিশেষ করে ভোগান্ত হচ্ছে মালাবাহী গাড়ির চালক ও বাসযাত্রীদের।

সিভিক ভলেন্টিয়ার এবং নিরাপত্তারক্ষীদের বেঁধে দুঃসাহসিক চুরি অশোকনগরে

এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার পূর্ত মন্ত্রী পুলক রায় জানিয়েছেন, পুজোর আগেই খুলে দেওয়া হবে টালা ব্রিজ। ৮০০ মিটার দীর্ঘ ৪ লেনের এই সেতু তৈরির কাজ প্রায় শেষ। এই সেতু তৈরি করতে খরচ হয়েছে ৪৬৮ কোটি টাকা।

উদ্ধার হয়েছে ১৮ জোড়া কানের দুল, ১১ টা বালা, আর কী মিলল অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে?

মাঝেরহাট উড়ালপুল দুর্ঘটনার পর থেকে রাজ্যের সেতু ও উড়ালপুল নিয়ে বাড়তি সতর্ক হয়েছে রাজ্য সরকার। নিয়মিত সেতুগুলির স্বাস্থ্যপরীক্ষার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ত্রুটি ধরা পড়লে সঙ্গে সঙ্গে বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে সেতু। তেমনই স্বাস্থ্যপরীক্ষার সময় টালা সেতুর বেহাল দশা প্রকাশ্যে আসে। ইঞ্জিনিয়াররা জানান, এই সেতু মেরামত করা সম্ভব নয়। তার পরই রেলের সঙ্গে শলা করে সেতু ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য সরকার।

 

বন্ধ করুন