বাংলা নিউজ > ক্রিকেট > বিমানবন্দরে চাপে ওয়ার্নার, স্ক্যানারে যৌনাঙ্গে ধরা পড়ল ‘রহস্যময় চিহ্ন’

বিমানবন্দরে চাপে ওয়ার্নার, স্ক্যানারে যৌনাঙ্গে ধরা পড়ল ‘রহস্যময় চিহ্ন’

ডেভিড ওয়াার্নার, ফাইল ছবি (AP)

এমন কী হয়েছিল অজি ওপেনারের সঙ্গে মার্কিন মুলুকে, বিস্তারিত ভাবে জানিয়েছেন তাঁর স্ত্রী। 

গোটা পরিবারের সঙ্গে আপনি বেড়াতে যাচ্ছেন। আর সেই বেড়াতে বেরিয়ে বিমানবন্দরে যদি আপনাকে হঠাৎ করেই কোন অপ্রত্যাশিত সমস্যায় পড়তে হয় তাহলে বিষয়টি যে বিড়ম্বনার তা বলার অপেক্ষা রাখে না। সম্প্রতি ঠিক এমন ঘটার সম্মুখীন হতে হয়েছে বিশ্বকাপজয়ী বাঁ হাতি অজি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে। অস্ট্রেলিয়ান দলের তারকা ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ঘটে যাওয়া এই ঘটনা যেমন একদিকে চমকপ্রদ তেমনি অন্যদিকে হাসিয়েছে সবাইকে।

ওয়ার্নারের স্ত্রী ক্যান্ডিস ওয়ার্নার জানিয়েছেন তাঁর স্বামীর সঙ্গে লস অ্যাঞ্জেলেস বিমানবন্দরে ঠিক কী ঘটেছিল। ক্যান্ডিস জানিয়েছেন ডেভিড বিমানবন্দরের নিরাপত্তা স্ক্যানারে প্রবেশ করার সময়তেই হঠাৎ অ্যালার্ম বেজে ওঠে। সঙ্গে সঙ্গে অ্যালার্ট হয়ে যান নিরাপত্তারক্ষীরা। ডেভিড ওয়ার্নারও ঘাবড়ে যান। জানা যায় স্ক্যানারে নাকি তাঁর যৌনাঙ্গে এক 'রহস্যময়' হটস্পট পাওয়া গিয়েছে !

এরপর তাঁকে থামিয়ে আলাদা করে স্ক্যানের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।তাঁর গোটা শরীরে তল্লাশি চালানো হয়। কারণই সিকিউরিটি স্ক্যানার তাঁর যৌনাঙ্গে একটি হট স্পট দেখানোর পরে ক্রমাগত সাইরেন বেজে চলেছিল। ক্যান্ডিস কোনও সমস্যা ছাড়াই নিরাপত্তা বেষ্টনী টপকাতে পারলেও ডেভিডকে আটক পড়তে হয়। ক্যান্ডিস বলেন 'আশেপাশের সবাই হাসছিল। এক ব্যক্তি সন্দেহ করেছিল যে ডেভিড একটি পিয়ার্সিং করেছে ওঁর যৌনাঙ্গে! সম্ভবত এই কারণেই স্ক্যানারে ওই হটস্পট এসেছে। পরে নিরাপত্তারক্ষী তার কাছে এসে বললেন, ‘দেখুন, আমাদের এটা ঠিক করতে হবে, কিন্তু আমি বুঝতে পারছিলাম না কি ঘটছে, বা আমার স্বামীর (ব্যক্তিগত অংশ) সঙ্গে মেশিনে কি ঘটেছে!' কম্পিউটারের ঠিক পাশে থাকা জায়ান্ট স্ক্রিনে ডেভিড ওয়ার্নারের ওই হটস্পটের বিষয়টি দেখানো হচ্ছিল। ফলে চারপাশের লোকজন আরো হাসি ঠাট্টায় মেতে ওঠে। ঘটনাটি মিটে গেলেও তার রেশ থেকে গিয়েছে। সঠিক কি কারণে স্ক্যানার ডেভিড ওয়ার্নারের যৌনাঙ্গে হটস্পট আবিষ্কার করে বসল তার সদুত্তর দিতে পারেনি বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ও।

চিকিৎসা বিশেষজ্ঞ ডাঃ স্যাম জানিয়েছেন সম্ভাব্য পিয়ার্সিংয়ের কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে। যার উত্তরে ক্যান্ডিস বলেছিলেন 'না, না, এরকম কিছু নয়।' অবশেষে ডেভিড এবং ক্যান্ডিস ওয়ার্নার, দু’জনকেই সিডনিতে ফেরার অনুমতি দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে অংশ নিতে আমেরিকায় সস্ত্রীক গিয়েছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার।

 

বন্ধ করুন