বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ স্ট্যালিনের, তামিলনাড়ুর মন্ত্রিসভায় নেহরু-গান্ধী!
তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)
তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এমকে স্ট্যালিন (ছবি সৌজন্যে পিটিআই)

মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ স্ট্যালিনের, তামিলনাড়ুর মন্ত্রিসভায় নেহরু-গান্ধী!

  • তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন ডিএমকে প্রধান এমকে স্ট্যালিন। স্ট্যালিনের মন্ত্রিসভায় জায়গা পেলেন গান্ধী, নেহরু!

তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন ডিএমকে প্রধান এমকে স্ট্যালিন। এবং স্ট্যালিনের মন্ত্রিসভায় জায়গা পেলেন গান্ধী, নেহরু! এই গান্ধী অবশ্য রাহুল, সোনিয়া বা প্রিয়াঙ্কা নন। এছাড়া এই নেহরুও জওহরলাল নন। এরা আদতে সমনামী রাজনীতিবিদ। এদের পদবী গান্ধী এবং নেহরু।

শুক্রবার রাজভবনে স্ট্যালিনকে শপথগ্রহণ পাঠ করালেন তামিলনাড়ুর রাজ্যপাল বনওয়ারিলাল পুরোহিত। স্ট্যালিনের মন্ত্রিসভা পুরমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন ডিএমকে নেতা কেএন নেহরু। তিনি ত্রিচি পশ্চিম থেকে ডিএমকে-র টিকিটে জিতেছেন। এই নিয়ে মোট পঞ্চমবার ত্রিচি পশ্চিম থেকে বিধায়ক নির্বাচিত হলেন নেহরু। উল্লেখ্য, কেএন নেহরু নিজে কংগ্রেস নেতা ছিলেন। দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর নামে ছেলের নাম রেখেছিলেন। ২০০৫ সালে নেহরু, তাঁর স্ত্রী এবং ছেলের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। আয় বহির্ভূত সম্পত্তির অভিযোগ উঠলেও পরে আদালতের ক্লিনচিট পেয়েছিলেন নেহরু।

এদিকে বস্ত্র, খাদি এবং গ্রাম শিল্প দফতরের দায়িত্ব পেলেন আর গান্ধী। তিনি রানিপেট থেকে জিতেছেন ডিএমকে প্রার্থী হিসেবে। এর আগে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল তাঁর নামে। নেহরু, গান্ধী সহ মোট ৩৩ জন এদিন শপথ নেন স্ট্যালিনের মন্ত্রিসভার সদস্য হিসেবে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ১০ বছর পর ফের ক্ষমতায় ফিরল ডিএমকে। ২০১৮ সালে করুণানিধির মৃত্যুর পর দলের রাশ নিজের হাতে নিয়েছিলেন স্ট্যালিন। কংগ্রেসের সাথে হাত মিলিয়ে বিজেপি বিরোধিতার সুর চড়িয়েছেন তিনি। এই আবহে একুশের নির্বাচনে ২৩৪ আসন বিশিষ্ট তামিলনাড়ুতে এনডিএ জোটের বিরুদ্ধে ডিএমকে জেতে ১৩৩টি আসন। তাদের জোট সঙ্গী কংগ্রেসের ঝুলিতে যায় ১৮টি আসন।

 

বন্ধ করুন