বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারের পাশে বিধায়ক রাজ, সমস্যা বসতবাড়ি নিয়ে
বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবারের পাশে রাজ চক্রবর্তী। 
বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবারের পাশে রাজ চক্রবর্তী। 

বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারের পাশে বিধায়ক রাজ, সমস্যা বসতবাড়ি নিয়ে

বাড়ির পাশে একটি শপিং কমপ্লেক্স ও বহুতল আবাসন তৈরি হচ্ছে। আর তার জেরেই ভেঙে পড়েছে ‘বিভূতিভূষণের বাড়ি’-র পাচিল। বাড়ির দেওয়ালের একটা অংশেও বড়সড় চিড়।

ব্যারাকপুরের মানুষের যে কোনও সমস্যায় সবার আগে এগিয়ে যান রাজ চক্রবর্তী। এলাকায় সদ্য বিধায়ক হিসেবে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে জয় পেয়েছেন। রাজনীতিতে নতুন হলেও, জনসেবার প্রতি ভালোবাসা আগেই ছিল। সেই থেকেই হয়তো এভাবে এগিয়ে আসা। এবার প্রখ্যাত সাহিত্যিক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন রাজ। কথা বললেন এই প্রখ্যাত সাহিত্যিকের উত্তরসূরীদের সঙ্গে। দীর্ঘ দিন ধরে বসতবাড়ি নিয়ে সমস্যার মুখে পড়েছেন বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবার৷ রাজ কথা দিয়েছেন পরিবারের পাশে থেকে তাঁদের যতদূর সম্ভব সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার। 

জানা গিয়েছে বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রয়ানের পর তাঁর স্ত্রী রমা বন্দ্যোপাধ্যায় বাড়িটি তৈরি করেছিলেন ব্যারাকপুর স্টেশন রোডে৷ এমনকী, স্থানীয়দের মধ্যেও এটি পরিচিত ‘বিভূতিভূষণের বাড়ি’ নামে। সাহিত্যিকের ব্যবহৃত বহু জিনিসও সংরক্ষিত আছে এই বাড়িতে। আপাতত তাঁর উত্তরসূরীরা থাকেন সেখানে। আর গত কয়েক মাস ধরে সমস্যায় পরেছিলেন বন্দ্যোপাধ্যায় পরিবার। বাড়ির পাশে একটি শপিং কমপ্লেক্স ও বহুতল আবাসন তৈরি হচ্ছে। আর তার জেরেই ভেঙে পড়েছে ‘বিভূতিভূষণের বাড়ি’-র পাচিল। বাড়ির দেওয়ালের একটা অংশেও বড়সড় চিড়। একতলা থৈ থৈ করছে জলে৷ স্মারকভবনে বিভূতিভূষণের ব্যবহৃত জিনিসের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলেও দাবি পরিবারের।

গত কয়েকমাস ধরেই বন্দ্যোপাদ্যায় পরিবার এবং ওই নির্মান সংস্থার মধ্যে চাপানউতর চলছে। সংবাদমাধ্যমে অভিযোগ জানিয়েছিলেন সাহিত্যিকের পুত্রবধূ মিত্রা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং নাতি তথাগত। ব্যারাকপুর পুরসভার পক্ষ থেকেও সাহায্যের আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। এবার তাঁদের বাড়ি গিয়ে সবার সঙ্গে দেখা করলেন রাজ। বাড়ির সকল সদস্যদের অভিযোগ শুনলেন ঠান্ডা মাথায়। এই সমস্যা দ্রুত নিষ্পত্তির আশ্বাসও দিয়েছেন।

বন্ধ করুন