বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Hero Alom: বাংলাদেশের পুলিশ মানসিক নির্যাতন করেছে! বিস্ফোরক দাবি হিরো আলমের
মানসিক নির্যাতন করছে বাংলাদেশের পুলিশ, জানালেন হিরো আলম

Hero Alom: বাংলাদেশের পুলিশ মানসিক নির্যাতন করেছে! বিস্ফোরক দাবি হিরো আলমের

  • ‘হিরো’ নামই পালটে ফেলার নির্দেশ! 'রবীন্দ্র সঙ্গীত আর গাইব না', মুচলেকা দিয়ে পুলিশের হাত থেকে রেহাই পেয়েছিলেন হিরো আলম। এবার পুলিশের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ করেছেন তিনি।

'পুলিশ মানসিক নির্যাতন করেছে', এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় ইউটিউবার হিরো আলম। বুধবার সংবাদ সংস্থা এএফপি-র কাছে এমনই অভিযোগ করেছেন তিনি। 

বেসুরো গলায় একের পর এক গান গেয়ে নেটমাধ্যমে জনপ্রিয়তার শীর্ষে হিরো আলম। সম্প্রতি রবীন্দ্রসঙ্গীত গেয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। দেশের সংস্কৃতির অবমাননা করছেন হিরো আলম, তাঁকে দেখে বিপথে যাচ্ছে আগামী প্রজন্ম- এমন অভিযোগ তোলেন দেশেক সংস্কৃতি-মনস্ক মানুষজন। 

বাংলাদেশের অপসংস্কৃতি প্রতিরোধ সংস্থা এক মানববন্ধনের আয়োজন করেছিল। সেখানে হিরো আলমকে গ্রেফতারির দাবি জানানো হয়েছিল। এরপরই গত সপ্তাহে পুলিশ তাঁকে আটক করে দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদ করে। পরে অবশ্য মুচলেখা লিখিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে। 

আরও পড়ুন: পরিণতি পাচ্ছে ১০ বছরের প্রেম! শীঘ্রই বিয়ের পিঁড়িতে আলি ফজল-রিচা চাড্ডা

ফেসবুকে হিরো আলমের ফলোয়ার্স প্রায় ২০ লক্ষ। ইউটিউবে ১৫ লক্ষ। বৃহস্পতিবার ভোরে পুলিশ আটক করে এই জনপ্রিয় ইউটিউবারকে। পুলিশ সূত্রে খবর, হিরো আলমের বিরুদ্ধে ডিবি সাইবার ক্রাইম বিভাগের কাছে অজস্র অভিযোগ জমা পড়েছিল। এই পরিপ্রেক্ষিতে তাঁকে আটক করা হয়েছিল। 

এরপরই হিরো আলম সোশ্যাল মিডিয়া মারফত ঘোষণা করেন, আর কখনও বেসুরো বা বিকৃত গান গাইবেন না। এবার হিরো আলমের অভিযোগ, 'পুলিশ মানসিক নির্যাতন করেছে'। যুক্তি দিয়ে তিনি বলেন, 'তিনি গাইতে ভালোবাসেন। তাঁর গানও অনুরাগীরা ভালোবাসেন। তাই নিজের ইউটিউব চ্যানেলে গান প্রকাশ করেন। ইদানীং তাতেও বাদ সাধছেন অন্য ইউটিউবাররা।' 

আরও পড়ুন: পুরুষ ‘নির্যাতনে’ প্রশ্রয়ের অভিযোগ আলিয়ার বিরুদ্ধে!‘ডার্লিংস’ বয়কটের ঝড় টুইটারে

হিরো আলমের দাবি, তাঁকে তিরস্কার করা হয়েছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং কাজী নজরুল ইসলামের দুটি গান গাওয়ার জন্য। এই বেসুরো গানই দর্শক ভালোবেসে এসেছে। সুতরাং তাঁর উপর এই অত্যাচার বন্ধ হোক, দাবি বাংলাদেশি শিল্পীর।

তিনি বলেন, ‘গত সপ্তাহে পুলিশ তাঁকে মানসিকভাবে নির্যাতন করেছেন এবং পুলিশ তাকে ক্লাসিক্যাল গান করা বন্ধ করতে বলেছেন। এমনকি তাঁকে দিয়ে ক্ষমা চাওয়ানো হয়েছে।’ তাঁর দাবি, ‘সকাল ৬টা থেকে পুলিশ ৮ ঘণ্টা আটকে রেখেছিল। তাঁরা আমাকে জিজ্ঞাসা করেছেন আমি কেন রবীন্দ্রনাথ এবং নজরুলের গান গাই।’

ঢাকার চিফ ডিটেক্টিভ হারুল-উল-রশিদ জানিয়েছেন, ‘হিরো আলমকে গান গাইতে নিষেধ করা হয়নি, কেবল রবীন্দ্রসংগীত বা নজরুলগীতির মতো গান বিকৃত করতে বারণ করা হয়েছে। সেই কথা উনি মেনে নিয়েছেন’।

 

বন্ধ করুন