বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মাদার টেরেসার পোস্টে জ্যোতি বসু, দেবশ্রীকে বাদ! বিতর্কের পালটা জবাব বুম্বাদা'র
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (ফাইল ছবি)
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (ফাইল ছবি)

মাদার টেরেসার পোস্টে জ্যোতি বসু, দেবশ্রীকে বাদ! বিতর্কের পালটা জবাব বুম্বাদা'র

  • খোলা চিঠিতে ট্রোলারদের বিতর্কের উত্তর দিলেন প্রসেনজিৎ।

আগাগোরাই ট্রোলারদের খুব একটা পাত্তা দিয়ে চলেন না অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। যদিও ট্রোলারদের সামাল দিতে সিদ্ধহস্ত অভিনেতা। বৃহস্পতিবার মাদার টেরেসার ১১১তম জন্মদিন উপলক্ষে শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর সঙ্গে তোলা বহু পুরোনো নিজের একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়।

গণ্ডগোল বাধে যখন এক নেটনাগরিকের সুবাদে সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট হতেই শুরু হয়েছে হইচই। আসল ছবিতে দেখা যাচ্ছে প্রসেনজিতের পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছেন তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী দেবশ্রী রায়। আর মাদার টেরেসার একপাশে বসে রাজ্যের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু। এই আসল ছবি থেকে তাঁদের বেমালুম কেটে বাদ দিয়ে মাদারের সঙ্গে স্রেফ তাঁর ছবি পোস্ট করেছেন প্রসেনজিৎ। ট্রোলারদের তির্যক মন্তব্যের শিকার হতে হন তিনি। 

তবে এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেতা। সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কিত গোটা ছবিটিই পোস্ট করেন প্রসেনজিৎ। পাশাপাশি ছবিতে লেখেন, ‘আমি সাধারণত সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলিং-এর কোনও উত্তর দিইনি কিন্তু এইবার প্রয়োজন বলে মনে হল। কারণ এই বিতর্কের সঙ্গে এমন কিছু মানুষের নাম জড়িয়ে, যাঁদের আমি ভীষণ সম্মান করি’।

তিনি আরও লেখেন, 'প্রথমত, আমি ছবিটি ক্রপ করে বা কেটে কাউকে বাদ দিইনি। অনেকদিন আগে এই অর্ধেক ছবিটিই আমায় ফরোয়ার্ড করেছিলেন একজন। আসল ছবিটি আমার কাছে ছিল না। মাদার টেরেসার জন্মদিনে ভাবলাম এই ছবিটি পোস্ট করা যেতে পারে। তাই করেছিলাম। দ্বিতীয়ত, মাদার টেরেসার প্রতি সম্মান দেখানো ছাড়া এই ছবিটি পোস্ট করার অন্য কোনও উদ্দেশ্য বা ইচ্ছে আমার ছিল না। তৃতীয় ও সর্বশেষ, আমি বিশ্বাস করি, কোনও রাজনৈতিক ব্যক্তির সঙ্গে ছবি পোস্ট করা মানেই কোনও বিশেষ দলকে সমর্থন বা কোনও দলের বিরোধিতা করা হয়ে যায় না। আর তাই আমি পুরো ছবিটি পোস্ট করছি। এটা আমি আগের ছবির কমেন্ট বক্স থেকেই খুঁজে পেয়েছি।'

পোস্টের শেষে বুম্বা দা-র আবেদন, 'গোটা পৃথিবী একটা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। আসুন ঘৃণা না ছড়িয়ে সবাই সবার পাশে দাঁড়াই, সবাইকে ভালবাসি।'

প্রসঙ্গত, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসুর ছবি কেটে বাদ দেওয়ার কারণে নেটিজেনদের রোষের মুখে পড়তে হয়েছিল অভিনেতাকে। নেটিজেনদের দাবি একসময়ে জ্যোতিবাবুর সঙ্গে যথেষ্ট হৃদ্যতা ছিল 'বুম্বা'-দার। এখন তাঁর জ্যোতি বসুকে আর প্রয়োজন নেই তাই ছবির পুনর্নিমাণ করার আগে হয়তো একমুহূর্ত ভাবেননি তিনি। এমনকি প্রাক্তন স্ত্রী দেবশ্রী ও তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও কাটাছেঁড়া করেছে নেটিজেন। এবার খোলা চিঠির মাধ্যমে সেই জবাব দিলেন অভিনেতা।

 

 

বন্ধ করুন