বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ইন্ডিয়ান আইডল নিয়ে বিস্ফোরক সুনিধি, বিচারকের আসন থেকে সরে দাঁড়ানোর কারণ ফাঁস
সুনিধি চৌহান (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
সুনিধি চৌহান (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

ইন্ডিয়ান আইডল নিয়ে বিস্ফোরক সুনিধি, বিচারকের আসন থেকে সরে দাঁড়ানোর কারণ ফাঁস

  • ‘নির্মাতারা যা বলবেন তেমনটা করা আমার পক্ষে সম্ভবপর নয়’, বোমা ফাটালেন সুনিধি চৌহান। 

অমিত কুমার, সোনু নিগমের পর এবার রিয়ালিটি শো ইন্ডিয়ান আইডল নিয়ে বোমা ফাটালেন সুনীধি চৌহান। বিতর্ক কিছুতেই পিছু ছাড়ছে না এই সিঙ্গিং রিয়ালিটি শো-এর। একটা সময় ইন্ডিয়ান আইডলের বিচারকের আসন অলঙ্কৃত করেছেন এই গায়িকা। এক সাক্ষাত্কারে তিনি জানালেন, ‘নির্মাতারা যা চাইতেন তেমনটাই করতে হত’, নিজের মতো করে প্রতিযোগিদের নিয়ে মতামত দিতে পারতেন না। ইন্ডিয়ান আইডল-এর পঞ্চম ও ষষ্ঠ সিজনে বিচারকের আসনে দেখা গিয়েছিল সুনিধিকে।

রবিবার টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে সুনিধি জানান,'এমনটা নয় যে সকলের প্রশংসা করতে বলা হত। কিন্তু হ্যাঁ, আমাদের প্রশংসা করতে বলা হত। সেটাই বেসিক কারণ ছিল যে আমি আর শো-টা অংশ হিসাবে থাকতে পারলাম না। তাঁরা (নির্মাতা) যা বলবেন তেমনটা করা আমার পক্ষে সম্ভবপর নয়। সেই কারণেই আজকের দিনে দাঁড়িয়ে আমি কোনও রিয়ালিটি শো-এরই বিচারক নই'। 

কী কারণে নির্মাতারা এমনটা করে থাকেন, সেই সম্পর্কে জানতে চাওয়া হলে সুনিধি বলেন- ‘হয়ত মনোযোগ টানবার জন্য, দর্শকদের আকর্ষিত করতে বা দর্শক যাতে চুম্বকের মতো টেলিভিশন সেটের সঙ্গে আটকে থাকে তেমনটা করতে করা হয়। আমার ধারণা এটা হয়ত ওঁনাদের জন্য ভালো ফল এনে দেয়’। 

এই বিতর্কের শুরু চলতি মাসের গোড়ার দিতে অমিত কুমারের এক সাক্ষাত্কার ঘিরে। দিন কয়েক আগেই ইন্ডিয়ান আইডলের এক এপিসোডে কিশোর কুমারকে শ্রদ্ধার্ঘ জানানো হয়। সেই এপিসোডের অতিথি বিচারক ছিলেন অমিত কুমার। কিশোর পুত্র পরবর্তীতে এক সাক্ষাত্কারে জানান, টাকার জন্যই এই শোয়ের অতিথি বিচারক হতে রাজি হয়েছিলেন তিনি, এবং শ্যুটিং শুরুর আগেই তাঁকে সকল প্রতিযোগির প্রশংসা করতে বলা হয়েছিল।

‘আমি সেটাই করেছি যা আমাকে করতে বলা হয়েছিল। সকলকে প্রশংসা করতে হবে এমনটা জানানো হয়েছিল। যে যেরকমই গান গেয়ে থাকুক সকলকে ভালো বলতে হবে, কারণ এটা কিশোরদাকে ট্রিবিউট। আমি ভেবেছিলাম এটা আমার প্রয়াত বাবার প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ হতে চলেছে। সেখানে গিয়ে তাঁদের কথাই মেনে চলতে হবে। আগে থেকে স্ক্রিপ্ট চেয়েছিলাম, তবে তেমনটা ঘটেনি’, জানান অমিত কুমার।

বন্ধ করুন