বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > রিমেকের অর্থ অন্যের সৃজনশীলতায় বাঁচা, যা আমার ঠিক পছন্দ নয়: সৃজিত মুখোপাধ্যায়

রিমেকের অর্থ অন্যের সৃজনশীলতায় বাঁচা, যা আমার ঠিক পছন্দ নয়: সৃজিত মুখোপাধ্যায়

সৃজিত মুখোপাধ্যায়।(ছবি সৌজন্যে - টুইটার)

নতুন হিন্দি ওয়েব সিরিজ জানবাজ হিন্দুস্তান নিয়ে কথা প্রসঙ্গে সৃজিত জানালেন, রিমেকের কাজ পছন্দ নয় তাঁর শুরু থেকেই। গত কয়েক বছরে তিনি বেশ কিছু বড় বাজেটের অফারও এই কারণেই ফিরিয়েছেন। 

শুধু টলিউডে নয়, বলিউডেও নিজের পায়ের জমি শক্ত করেছেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। বানিয়েছেন সাবাশ মিঠু, শেরদিল, বেগম জানের মতো সিনেমা হিন্দিতে। এবার আসছে জানবাজ হিন্দুস্তান। যা মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে ZEE5-এ প্রজাতন্ত্র দিবস উপলক্ষে। সম্প্রতি হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৃজিতকে বলতে শোনা গেল, রিমেকের অফার তাঁর কাছে গত দু বছরে এসেছে ১০-১২ খানা। কিন্তু বড় প্রযোজনা সংস্থার নাম থাকা সত্ত্বেও তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেছেন। 

সৃজিতের কথায়, ‘আমি আসলে নিজের শর্তে গল্প বলতে চাই, যা দর্শক হিসেবে দেখতে আমার ভালো লাগবে। তা সে সিনেমা হলে মুক্তি পাক বা ওটিটি-তে। শর্ট ফিল্ম হলেও চলবে। ১০ বছর আগে যখন থেকে আমি কাজ শুরু করেছিলাম এই ব্যাপারে তখন থেকেই কঠোর। গত ২ বছরে ১০-১২টি রিমেকের কাজ প্রত্যাক্ষাণ করেছি। তাদের মধ্যে অনেকগুলি ছিল বড় ব্যানার এবং বড় বাজেটের চলচ্চিত্র এবং সিরিজ। আমি এমন কিছু করতে চাই যার উৎস হবে সাহিত্য বা ইতিহাস। ভাগ্যক্রমে, আমার কাছে বেছে নেওয়ার জন্য দুটি ভাষা আছে। আমি বাংলার পাশাপাশি হিন্দিতেও কাজ করতে পারি।’

তবে আজকাল রিমেক বেশি হচ্ছে বলে মানুষ কম সিনেমা হলে যাচ্ছেন এই যুক্তি মানতেও রাজি নন সৃজিত। জানালেন, ‘আমার এরকম মনে হয় না। এটা সম্পূর্ণই নির্মাতার সিদ্ধান্ত। দর্শকদের জন্য এটা কোনও ব্যাপারই না। দোবারার কথাই ধরুন, যা বক্স অফিসে চলেনি। কিন্তু দৃশ্যম ফাটিয়ে ব্যবসা করেছে। দুটোই রিমেক। আপনি কোনও থাম্বনেল সেট করতে পারবেন না। একটা ফিল্ম হতে হবে ভালো, জনপ্রিয়, মানুষের তা পছন্দ হতে হবে।’ আরও পড়ুন: এ তো অবিকল মৃণাল! সৃজিতের ‘পদাতিক’-এর ফার্স্ট লুক প্রকাশ্যে, চঞ্চলকে চেনা দায়

নিজের বক্তব্য সৃজিত জুড়ে দেন, ‘আমি এর চেয়ে নিজের কিছু বানাব, তা সে যেরকম স্কেলেই হোক না কেন। আমার কাছে রিমেকের অর্থ হল অন্যের সৃজনশীলতায় বাঁচা, যা আমার ঠিক পছন্দ নয়।’

আপাতত সৃজিতের পরের সিনেমা ‘পদাতিক’ নিয়ে বাংলার মানুষের উৎসাহ চরমে। মৃণাল সেনের মতো কিংবদন্তি পরিচালককে তিনি নিয়ে আসছেন রুপোলি পরদায়। তিমধ্যেই ছবির ফার্স্ট লুক প্রকাশ্যে এসেছে। যাতে মৃণালের চরিত্রে দেখা মিলেছে বাংলাদেশের অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীর। সেই একইরকম চশমার ফ্রেম, তেমনই চাউনি, সিগারেট ধরবার একই কায়দা- ছবি দেখে চেনা দায় কোনটা রিয়েল আর কোনটা রিল! মৃণাল-জায়া গীতা সেনের চরিত্রে এই ছবিতে দেখা মিলবে মনামী ঘোষের।

বন্ধ করুন