বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > শাহরুখের সমান পারিশ্রমিক দাবি করেছিলেন করিনা! দিতে নারাজ করণ, ঝগড়া চলেছিল ৯ মাস
করিনা কাপুর খান ও করণ জোহর
করিনা কাপুর খান ও করণ জোহর

শাহরুখের সমান পারিশ্রমিক দাবি করেছিলেন করিনা! দিতে নারাজ করণ, ঝগড়া চলেছিল ৯ মাস

  • পারিশ্রমিক বিতর্ক! করণের ফোন তোলেননি করিনা, টানা ৯ মাস ঝগড়া চলেছিল দুজনের।

অনেকগুলো ছবিতে একসঙ্গে কাজ করেছেন অভিনেত্রী করিনা কাপুর খান এবং পরিচালক করণ জোহর। দুজনই বলিউডের নামী পরিবারের সদস্য। দুজনকে ফের একবার একসঙ্গে কাজ করতে দেখা যাবে ‘তখত’ ছবিতে। যদিও করোনা অতিমারীর কারণে ইতিমধ্যে পিছিয়ে গিয়েছে ছবির শ্যুটিং। কিন্তু অনেকেই জানেনা, বহু বছর আগে করণ এবং করিনার মধ্যে একটা বড় ঝগড়া হয়েছিল। এমনকি ৯ মাস একে অপরের সঙ্গে কথাও বলেননি!

 ‘দ্য আনসুইটেবল বয়’ আত্মজীবনীতে সেই সম্পর্কে লিখেছেন করণ। তিনি লিখেছেন, ‘আমার প্রথম সমস্যা হচ্ছিল করিনাকে নিয়ে। ও আমার কাছে প্রচুর টাকার দাবি করেছিল। কিন্তু সেই সময় আমরা আর্থিক অবস্থা নিয়ে একটু সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছিলাম। মুঝসে দোস্তি কারোগে! পরিচালক কুণাল কোহলির, ওই ছবি সবেমাত্র মুক্তি পেয়েছিল। করিনার কথায়, ‘আদিত্য চোপড়ার সহকারী কুণাল কোহলি এই ফ্লপ ছবি বানিয়েছে, তাই করণ জোহরের সহকারী নিখিল আডবানিকে আর বিশ্বাস করা যায় না’। 

এরপরই নাকি শাহরুখ খানের সমান পারিশ্রমিক মূল্য দাবি করে বসেন করিনা। করণ জানিয়েছেন, ‘মুঝলে দোস্তি কারোগে মুক্তির সপ্তাহন্তে আমি ওকে কাল হো না হো-র জন্য অফার করি। কিন্তু শাহরুখ যতটা পারিশ্রমিক পাচ্ছে ও ততটাই পারিশ্রমিকের দাবি করে বসে। আমি বলি, ক্ষমা করো’।

এরপরই পরিচালক জানিয়েছেন, কীভাবে তিনি প্রীতি জিন্টার সঙ্গে চুক্তি করেন ছবির জন্য। ‘আমি খুব দুঃখ পেয়েছিলাম, আমার বাবাকে জানিয়েছিলাম। দর কষাকষির জন্য ওঁকে ফোন করেছিলাম। কিন্তু সেদিন ও ফোন তোলেনি। এরপরই আমি ঠিক করি, ‘আমরা আর ওর সঙ্গে এবিষয় কথা বলব না’। এরপরই প্রীতি জিন্টার সঙ্গে চুক্তি করি। প্রায় একবছর আমি আর করিনা কথা বলিনি। এক বছর আমাদের একে অপরের সঙ্গে পার্টিতে দেখা হত। এটা খুব বোকার মতো ছিল। ও বাচ্চা ছিল; ও আমার থেকে প্রায় ১০ বছরের ছোট’।

তিনি আরো বলেন, ‘এরপরই নভেম্বরে কাল হো না হো- মুক্তি পায়। আমরা জুন, জুলাই, আগস্টে ছবিটির শুটিং করেছি এবং সেপ্টেম্বরে আমাদের গানের শুটিং করতে হয়েছিল, প্রোমো তৈরি করতে হয়েছিল ইত্যাদি। সুতরাং, আমাকে কাজে ফিরে যেতে হয়েছিল, তখন আমার বাবার নিউইয়র্কের চিকিৎসা চলছিল। সেই সময়ই আমাকে ফোন করেছিল কারিনা। আগস্ট মাস ছিল। আমরা টানা ৯ মাস কথা বলিনি। ও ফোন করে বলল, ‘আমি যশ আঙ্কেলের বিষয়ে শুনেছি।’ ফোনের ওপারে ও সত্যিই আবেগপ্রবণ হয়ে উঠেছিল এবং বলল, ‘আমি তোমাকে ভালোবাসি এবং আমি দুঃখিত যোগাযোগ না করার জন্য। চিন্তা করো না ’।

ধর্মা প্রোডাকশনের ব্যনারে একাধিক ছবি করেছেন করিনা। গুড নিউজ, এক ম্যায় অর এক তু, উই আর ফ্যামিলি, কুরবান, কভি খুশি কভি গম প্রমুখ।

 

 

বন্ধ করুন