বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > অতিমারীতে একদিনও বন্ধ থাকেনি আদালত, প্রায় ৫০ লাখ মামলা ফয়সালার দাবি বোবডের
অতিমারী পরিস্থিতিতোে একদিনের জন্যও বন্ধ থাকেনি সুপ্রিম কোর্ট, জানালেন প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবডে।
অতিমারী পরিস্থিতিতোে একদিনের জন্যও বন্ধ থাকেনি সুপ্রিম কোর্ট, জানালেন প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবডে।

অতিমারীতে একদিনও বন্ধ থাকেনি আদালত, প্রায় ৫০ লাখ মামলা ফয়সালার দাবি বোবডের

  • লকডাউনের মাঝে অবাধ সুবিচার প্রদানই সুপ্রিম কোর্টের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল, কারণ তা নাগরিক মনে নিরাপত্তা ও ভালো থাকা সুনিশ্চিত করে।

অতিমারী পরিস্থিতিতেও সাংবিধানিক প্রক্রিয়া সচল রাখতে সফল হয়েছে দেশের বিচার ব্যবস্থা। দেশব্যাপী লকডাউনের মাঝে একদিনের জন্যও বন্ধ থাকেনি সুপ্রিম কোর্ট। বৃহস্পতিবার ৭১তম সংবিধান দিবস উপলক্ষে এই মন্তব্য করেছেন ভারতের প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবডে।

গতকাল সুপ্রিম কোর্ট এবং সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের দুই সভায় উপস্থিত প্রধান বিচারপতি কোভিড অতিমারীকে এক ‘অকস্মাৎ চমক ও বাধা’ হিসেবে বর্ণনা করে তা বিচার পাওয়ার পথে বাধা সৃষ্টি করেছে বলে জানিয়েছেন। 

বার অ্যাসোসিয়েশনের সভায় বোবডে বলেন, ‘লকডাউনের মাঝে অবাধ সুবিচার প্রদানই সুপ্রিম কোর্টের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল, কারণ তা নাগরিক মনে নিরাপত্তা ও ভালো থাকা সুনিশ্চিত করে। আদালতে শারীরিক উপস্থিতি বন্ধ করাই ছিল প্রথম পদক্ষেপ, অন্যথায় দাবানলের মতো ছড়িয়ে পরার সম্ভাবনা ছিল সংক্রমণের।’

সুপ্রিম কোর্টের সভায় পৌরহিত্য করেন রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দ। তিনি বলেন, ‘যতদূর পর্যন্ত তার নাগাল পাওয়া যায়, সুবিচারকে রক্ষা করা সম্ভব। এ পথে প্রধান দুই বাধা হল মামলা লড়ার খরচ এবং ভাষা।’

আইনজীবী হিসেবে কর্মরত থাকাকালীন তিনি সর্বদা দরিদ্র মক্কেলদের মামলা লড়ার খরচের প্রতি সজাগ ছিলেন ও সাধ্যমতো তাঁদের সাহায্য করেছেন বলে জানান রাষ্ট্রপতি। পাশাপাশি, আঞ্চলিক ভাষা ব্যবহারের সুযোগ করেদেওয়ার জন্য তিনি সুপ্রিম কোর্টের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। 

সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সভায় প্রধান বিচারপতি বলেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্ভোগ অবসান এবং কোভিড আক্রান্ত মৃত্যুপথযাত্রীদের সাধ্যমতো খরচে চিকিৎসার সুবিধা দিতে কথা মাথায় রেখে স্বতঃপ্রোদিত একাধিক পদক্ষেপ করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এই প্রসঙ্গে তিনি মন্তব্য করেন, ‘অন্য অনেক দেশের তুলনায় আমাদের বিচার ব্যবস্থা ভালো কাজ করেছে।’

পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি জানান, লকডাউনের সময় মোট ১৪,৮৪৯টি মামলার শিুনানি সম্পূর্ণ করতে করতে সফল হয়েছে সুপ্রিম কোর্ট, ১.৫ লাখ মামলার শুনানি হয়েছে দেশের হাই কোর্টগুলি এবং প্রায় ৪.৫ লাখ মামলার শুনানি হয়েছে জেলা আদালতগুলিতে।

আপৎকালীন সময় এই সাফল্যের জন্য দেশের বিচার ব্যবস্থার অকুণ্ঠ প্রশংসা করেন সভায় উপস্থিত কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবি শংকর প্রসাদ। সেই সঙ্গে যোগাযোগ, বৈদ্যুতিন ব্যবস্থা এবং তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের দায়িত্বে থাকার জেরে তিনি সুবিচার প্রদানে প্রযুক্তিগত উৎকর্ষেরও প্রশংসা করেন। তিনি জানান, এই সময়কালে মোট ৩০,০০০ মামলার ফয়সালা করেছে সুপ্রিম কোর্ট, ১৩.৭৪ মামলার রায় দিয়েছে হাই কোর্টগুলি এবং ৩৫.৯৩ মামলার নিষ্পত্তি করতে সফল হয়েছে দেশের জেলা আদালতগুলি। এ ছাড়া দেশের নয়টি ভার্চুয়াল আদালত ১২৩ কোটি টাকা জরিমানা আদায়ে সফল হয়েছে বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী।

বন্ধ করুন