বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > হোমওয়ার্ক হয়নি, হাত-পা বেঁধে প্রখর রোদে ফেলে রাখা হল ৫ বছরের মেয়েকে!
হোমওয়ার্ক হয়নি, হাত-পা বেঁধে প্রখর রোদে ফেলে রাখা হল ৫ বছরের মেয়েকে! (ছবি সৌজন্যে এএনআই)

হোমওয়ার্ক হয়নি, হাত-পা বেঁধে প্রখর রোদে ফেলে রাখা হল ৫ বছরের মেয়েকে!

  • শিশুটি প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। হোমওয়ার্ক না করায় পাঁচ বছরের মেয়েকে দড়ি দিয়ে বেঁধে প্রখর রোদের মধ্যে ছাদে ফেলে রাখা হয় বলে অভিযোগ। আপাতত দিল্লিতে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির উপর ঘোরাফেরা করছে।

হোমওয়ার্ক করেনি। সেজন্য প্রবল রোদের মধ্যে পাঁচ বছরের মেয়েকে দড়ি দিয়ে বেঁধে ছাদে রেখে দেওয়া হল। এমনই অভিযোগ উঠল দিল্লির কারাওয়াল নগরে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করে দিল্লি পুলিশ।

সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শিশুটি প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। পরিবারের সঙ্গে দিল্লির কারাওয়াল নগরের তুখমিরপুরে থাকে। হোমওয়ার্ক না করায় পাঁচ বছরের মেয়েকে দড়ি দিয়ে বেঁধে প্রখর রোদের মধ্যে ছাদে ফেলে রাখা হয় বলে অভিযোগ। আপাতত দিল্লিতে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির উপর ঘোরাফেরা করছে। 

আরও পড়ুন: USA: 'বিগ উইগ' বই প্রকাশ নিয়ে বিতর্ক মার্কিন মুলুকে, বয়কটের ডাক

ভারতীয় আইনে শিশুদের উপর অত্যাচার রুখতে একাধিক ধারা আছে। ভারতীয় সংবিধানেও শিশুদের অধিকার রক্ষার বিধান আছে। সংবিধানের ৩৯ (ই) ধারায় শিশুদের যাতে হেনস্থা করা না হয়, তা নিশ্চিত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় মামলা করার বিধান আছে।

উল্লেখ্য, কথা না শোনায় পাঁচ বছরের শিশুকে গরম স্টিলের মই দিয়ে পায়ের তালুতে ছ্যাঁকা দিয়েছিলেন মহিলা। শিশুটিকে খোঁড়াতে দেখেছিলেন প্রতিবেশীরা। পুলিশে খবর দেওয়া হয়েছিল। পুলিশ এসে ওই মহিলাকে গ্রেফতার করেছিল। শিশুটিরও চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। ঘটনাটি ঘটেছিল কেরলের ইডুক্কি জেলার পেথট্টি গ্রামে।

বন্ধ করুন