বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > শারীরিক অবস্থার অবনতি, রাঁচি থেকে দিল্লির এইমসে আনা হল লালুকে
রাঁচি থেকে দিল্লির এইমসে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
রাঁচি থেকে দিল্লির এইমসে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

শারীরিক অবস্থার অবনতি, রাঁচি থেকে দিল্লির এইমসে আনা হল লালুকে

  • পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে দণ্ডিত হয়েছেন লালু।

স্বাস্থ্যের আরও অবনতি হল বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী লালুপ্রসাদ যাদবের। তার জেরে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে লালুকে রাঁচি থেকে দিল্লির এইমসে নিয়ে আসা হল। ঝাড়খণ্ডের আইজি (কারাগার) বীরেন্দ্র ভূষণ জানিয়েছেন, মেডিক্যাল বোর্ডের পরামর্শে প্রাথমিকভাবে এইমসে একমাসের মতো চিকিৎসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে শারীরিক অবস্থার উপর নির্ভর করে সেই মেয়াদ বাড়ানো হতে পারে।

একাধিক অসুস্থতার কারণে রাঁচির রাজেন্দ্র ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সে (আরআইএমএস) চিকিৎসা চলছিল পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে দণ্ডিত লালুপ্রসাদের (৭২)। হাসপাতালের অধিকর্তা সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, গত দু'দিন বিহারের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা হচ্ছিল। শুক্রবার তাঁর নিউমোনিয়া ধরা পড়ে। বয়সের দিকটি বিবেচনা করে কোনও ঝুঁকি নেওয়া হয়নি। ভালো চিকিৎসার জন্য লালুকে দিল্লির এইমসে স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

ঝাড়খণ্ডে আরজেডির প্রধান অভয় কুমার জানিয়েছেন, শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার সময় রাঁচি বিমানবন্দর থেকে লালুকে নিয়ে ওড়ে এয়ার অ্যাম্বুলেন্স। রাত সাড়ে ন'টা নাগাদ সেটি দিল্লি বিমানবন্দরে অবতরণ করে। সেখান থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে এইমসে নিয়ে যাওয়া হয়। সঙ্গে ছিলেন লালুর স্ত্রী রাবড়ি দেবী, ছেলে তেজস্বী যাদব এবং মেয়ে মিসা যাদব। শুক্রবার রাতে রাঁচিতে এসে লালুর সঙ্গে দেখা করেছিলেন তাঁরা। শনিবার সংবাদমাধ্যমে তেজস্বী জানান, তাঁর বাবার শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট উদ্বেগজনক। সেদিনই ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের বাসভবনে যান। সেখানে হেমন্তের সঙ্গে দেখা করেন তেজস্বী।

তারইমধ্যে শুক্রবার রাজেন্দ্র ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সে ভরতি থাকার সময় লালুর বিরুদ্ধে জেলের নিয়ম লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে, সেই মামলা শুনেছে ঝাড়খণ্ড হাইকোর্ট। আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি আবারও মামলাটির শুনানি হবে।

বন্ধ করুন