বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > চূড়ান্ত নাটকের পর প্রায় রাত ১১ টায় জামিন পেলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী
কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নারায়ণ রাণে। (ছবি সৌজন্য অনিল ফালকে/হিন্দুস্তান টাইমস)
কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নারায়ণ রাণে। (ছবি সৌজন্য অনিল ফালকে/হিন্দুস্তান টাইমস)

চূড়ান্ত নাটকের পর প্রায় রাত ১১ টায় জামিন পেলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

  • দিনভর চূড়ান্ত নাটকের সাক্ষী থাকল মহারাষ্ট্র।

দিনভর চূড়ান্ত নাটকের পর প্রায় রাত ১১ টা নাগাদ জামিন পেলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নারায়ণ রাণে। রায়গড় জেলার মাহাদের একটি নিম্ন আদালতে তাঁর জামিন মঞ্জুর হয়েছে। 

মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরেকে ‘ঠাসিয়ে থাপ্পড় মারার’ কথা বলার জন্য মঙ্গলবার দুপুরের দিকে রত্নাগিরির সংগ্রামেশ্বরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে গ্রেফতার করা হযেছিল। রাতের দিকে তাঁকে আদালতেে তোলা হলে সরকারি আইনজীবী বিচারবিভাগীয় হেফাজতের আর্জি জানিয়েছিলেন। পালটা স্বাস্থ্যগত সমস্যা, এফআইআরের একাধিক ধারা-সহ একাধিক কারণ দর্শিয়ে ৬৯ বছরের বিজেপি নেতার জামিনের আর্জি জানানো হয়। যে আর্জি মঞ্জুর হয়েছে। সূত্রের খবর, তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া একাধিক এফআইআর খারিজ এবং গ্রেফতারি থেকে রক্ষাকবচের আর্জি জানিয়ে বম্বে হাইকোর্টে মামলা করবেন। আপাতত নাসিক, পুণে এবং মাহাদ-সহ তাঁর বিরুদ্ধে কমপক্ষে তিনটি এএফআইআর দায়ের করা হয়েছে।

যদিও বম্বে হাইকোর্টে মামলা দায়েরের বিষয়ে কিছু জানাননি রানের আইনজীবী অনিকেত নিকম। জামিনের আর্জি মঞ্জুর হওয়ার পর আইনজীবী বলেন, ‘১৫,০০০ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন মঞ্জুর হয়েছে। চারটি শর্ত দেওয়া হয়েছে। রানের দু'বার মাহাদ পুলিশের কাছে হাজিরা দিতে হবে; আর সেই কাজ করা যে হবে না, তার নিশ্চয়তা দিতে হবে; ভয়েস স্যাম্পেল জোগাড়ের জন্য তাঁকে পুলিশের সঙ্গে সহযোগিতা করতে হবে এবং তথ্যপ্রমাণ বিকৃত না করার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।’ 

উল্লেখ্য, সোমবার বিজেপির জন আশীর্বাদ যাত্রার সময় রায়গড় জেলায় রাণে দাবি করেছিলেন, স্বাধীনতা দিবসের ভাষণের সময় উদ্ধব ভুলে গিয়েছিলেন যে ভারত কবে স্বাধীন হয়েছে। ভাষণের মাঝপথে তাঁকে একজনের থেকে জানতে হয়েছিল। সেই ঘটনাকে লজ্জাজনক হিসেবে অ্যাখা দিয়ে রানে বলেছিলেন, দেশ কবে স্বাধীন হয়েছে, তা একজন মুখ্যমন্ত্রী ‘জানেন না’। রাণের কথায়, ‘ভাষণের সময় উনি জানার জন্য ঝুঁকেছিলেন। আমি যদি ওখানে থাকতাম, তাহলে ঠাসিয়ে থাপ্পড় মারতাম।’

রাণের সেই মন্তব্য নিয়ে তুমুল বিতর্ক শুরু হয়। মঙ্গলবার রাণের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখাতে শিবসেনা কর্মীরা সান্তাক্রুজে মন্ত্রীর বাসভবনের সামনে যান। সেখানে বিজেপি কর্মীদের বিরোধিতার মুখে পড়েন মহারাষ্ট্রের শাসক দলের কর্মীরা। রাণের কুশপুতুল পোড়ান সেনা কর্মীরা। সেই সময় দু'পক্ষের সংঘর্ষ বেঁধে যায়। শিবসেনা কর্মীরা কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে মুরগি চোর বলে কটাক্ষ করেন। নাসিকে বিজেপি পার্টি অফিসে হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। সেই আবহে দুপুরে ফের জন আশীর্বাদ যাত্রার প্রস্তুতি নেন রাণে। কোঙ্কন অঞ্চলের রাজাপুর, লাঞ্জা, রত্নগিরিতে সেই যাত্রা হওয়ার কথা থাকলেও রুটের 'দখল' নেন শিবসেনা কর্মী-সমর্থকরা। এদিকে বিতর্ক তীব্র আকার নিলে মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীস দাবি করেন, পুলিশ আইন মেনে কাজ করুক। তিনি পরিস্থিতি সামাল দিতে বলেন, 'মুখ্যমন্ত্রী সম্পর্কে একটু সংযত মন্তব্য করা উচিত ছিল রাণের।' তবে শিবসেনাকে পালটা একহাত নিয়ে বলেন, 'এর জন্য হাঙ্গামা করতে হবে, এর কোনও মানে নেই।'

বন্ধ করুন