বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > 'সন্ত্রাসে পাক মদত রুখতে হবে', ইসলামাবাদের গতিবিধির উপর নজরদারিতে সহমত কোয়াড
কোয়াড বৈঠকে যোগ দিতে যাচ্ছেন চার দেশের রাষ্ট্রনেতা (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) 
কোয়াড বৈঠকে যোগ দিতে যাচ্ছেন চার দেশের রাষ্ট্রনেতা (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) 

'সন্ত্রাসে পাক মদত রুখতে হবে', ইসলামাবাদের গতিবিধির উপর নজরদারিতে সহমত কোয়াড

  • কোয়াড বৈঠকে চার দেশের প্রধানই সহমত পোষণ করে জানান, পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে মদত দেয়।

কোয়াড সম্মেলনে উঠল পাকিস্তানের সন্ত্রাস প্রীতি প্রসঙ্গ। এমনটাই জানালেন ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ শ্রীংলা। কোয়াড অন্তর্ভুক্ত চার দেশ আমেরিকা, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানের রাষ্ট্রনেতা এবং প্রতিনিধিরা এদিন বৈঠকে সন্ত্রাসবাদ নিয়ে আলোচনা করেন বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তান যে ধোয়া তুলসি পাতা নয়, তাও মেনে নিয়েছে সব দেশ। চার দেশের প্রধানই সহমত পোষণ করে জানান, পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে মদত দেয়। আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতির নেপথ্যে পাকিস্তানের ভূমিকা নিয়েও আলোচনা হয় বৈঠকে।

জানা গিয়েছে সন্ত্রাস প্রীতির জন্য পাকিস্তানের উপর নজরদারি চালানো প্রসঙ্গে সিদ্ধান্ত হয় কোয়াড বৈঠকে। পাশাপাশি আফগানিস্তান ইস্যুও সামনে আসে শুক্রবারের বৈঠকে। ভারতের বিদেশ সচিব জানান, আফগানিস্তানে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের পিছনে যে পাকিস্তানের হাত আছে, তা মেনে নিয়ে কোয়াডভুক্ত সব দেশ।

এদিকে আফগানিস্তানে তালিবানের উত্থান নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মোদী জানান, তালিবান শাসনে আফগানিস্তান ফের সন্ত্রাসের ঘাঁটি হয়ে উঠছে। এদিকে বিদেশ সচিব হর্ষ শ্রীংলা জানান, আফগানিস্তানে তালিবানি শাসন জারি হওয়ার ক্ষেত্রে যে পাকিস্তানের ভূমিকা আছে, সেই বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে আলোচিত হয় বৈঠকে। শ্রীংলা জানান বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, পাকিস্তানের উপর আরও বেশি করে নজর রাখবে কোয়াড।

শ্রীংলা বলেন, 'দ্বিপাক্ষিক আলোচনার পাশাপাশি কোয়াড বৈঠকেও স্পষ্ট বোঝা গেল যে আফগানিস্তানে পাকিস্তানের ভূমিকা আরও সতর্কভাবে পর্যবেক্ষণ করার বিষয়ে সহমত সব দেশ। সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তানের ভূমিকা রুখতে হবে, এবং এই লক্ষ্যে কোয়াড বা তার অন্যান্য অংশীদারদের নজর রাখতে হবে বিষয়টির উপর।'

বন্ধ করুন