বাড়ি > ঘরে বাইরে > রিপোর্ট যাচাইয়ের পর রামদেবের করোনা দাওয়াইকে অনুমোদন দিতে পারে আয়ুষ মন্ত্রক
পতঞ্জলি আয়ুর্বেদের পাঠানো রিপোর্ট দেখার পরেই অনুমোদন দেওয়া হতে পারে করোনা সংক্রমণজনিত অসুখের আয়ুর্বেদিক ওষুধকে।
পতঞ্জলি আয়ুর্বেদের পাঠানো রিপোর্ট দেখার পরেই অনুমোদন দেওয়া হতে পারে করোনা সংক্রমণজনিত অসুখের আয়ুর্বেদিক ওষুধকে।

রিপোর্ট যাচাইয়ের পর রামদেবের করোনা দাওয়াইকে অনুমোদন দিতে পারে আয়ুষ মন্ত্রক

  • কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের নির্দেশ মেনে ইতিমধ্যে করোনিল ও শ্বাসারি সংক্রান্ত রিপোর্ট পাঠিয়েছে বলে জানিয়েছে পতঞ্জলি।

যোগগুরু রামদেবের পতঞ্জলি আয়ুর্বেদের পাঠানো রিপোর্ট দেখার পরেই অনুমোদন দেওয়া হতে পারে করোনা সংক্রমণজনিত অসুখের আয়ুর্বেদিক ওষুধকে। বুধবার এই কথা জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় আয়ুষ মন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক।

মঙ্গলবার কোভিড নিরাময়ের ওষুধ তাঁর পতঞ্জলি আয়ুর্বেদিক লিমিটেড সংস্থা তৈরি করে ফেলেছে বলে দাবি করেন যোগগুরু রামদেব। তিনি জানান, করোনিল এবং শ্বাসারি নামে ওই দুই ওষুধ সংবলিত করোনা কিট এবার অনলাইনে বিপণনের ব্যবস্থা করা হবে। সংবাদমাধ্যমে সেই খবর প্রকাশ হওয়ার পরে তাতে বাধ সাধে আয়ুষ মন্ত্রক। পতঞ্জলিকে চিঠি পাঠিয়ে ওষুধ সংক্রান্ত যাবতীয় নথিপত্র এবং গবেষণা রিপোর্ট পাঠাতে বলা হয় সংস্থাকে। সেই সঙ্গে ওষুধের প্রচার ও বিপণন বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: করোনা ওষুধের ক্লিনিকাল ট্রায়ালে ১০০% মাপকাঠি পূরণ হয়েছে, দাবি পতঞ্জলির

কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের নির্দেশ মেনে ইতিমধ্যে করোনিল ও শ্বাসারি সংক্রান্ত রিপোর্ট পাঠিয়েছে বলে জানিয়েছে পতঞ্জলি। 

সংবাদসংস্থা এএনআই-কে কেন্দ্রীয় আয়ুষ মন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক জানিয়েছেন, ‘দেশকে নতুন ওষুধ দিয়েছেন বাবা রামদেব, এ তো খুব ভালো কথা। কিন্তু প্রচার করার আগে সেই ওষুধের নমুনা ও নথিপত্র আয়ুষ মন্ত্রকে পাঠানোই নিয়ম। ওঁরা জানিয়েছেন যে মন্ত্রকে রিপোর্ট জমা দিয়েছেন। আমরা তা যাচাই করার পরেই ওষুধের অনুমোদন দেব।’

মন্ত্রকের তরফে পতঞ্জলিকে নতুন ওষুধের নাম, প্রস্তুত প্রণালী, উপাদান ও তচার অনুপান, নমুনার পরিমাণ, যে সমস্ত পরীক্ষাকেন্দ্র ও হাসপাতালে ওষুধ রোগীদের উপরে প্রয়োগ করা হয়েছে, তাদের নাম এবং ইনস্টিটিউশনাল এথিক্স কমিটির ছাড়পত্র জমা দিতে নির্দেশ দিয়েছে।

আরও পড়ুন: রামদেবের দাবিতে বাধা, কোভিড ওষুধের তথ্য তলবের সঙ্গে প্রচারে 'না' আয়ুষ মন্ত্রকের

এ দিকে আয়ুষ মন্ত্রকের চিঠি পাওয়ার পরে রামদেবের সতীর্থ আচার্য বালকৃষ্ণ টুইট করেন যে, এই বিষয়ে ‘যোগাযোগে ফাঁক’ থেকে গিয়েছে। তবে তা সংস্কার করে ১০০% নিয়মকানুন মেনেই আয়ুরবেদিক ওষুধ তৈরি করা হয়েছে। 

তিনি লিখেছেন, ‘এই সরকার আয়ুর্বেদ চর্চায় উৎসাহ দেয় এবং তার গৌরব প্রচার করে। যোগাযোগের অভাব পূর্ণ করা হয়েছে এবং আমরা আয়ুষ মন্ত্রকে নিয়ন্ত্রিত ক্লিনিকাল পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় নথিপত্র জমা দিয়েছি।’

প্রসঙ্গত, গতকাল হরিদ্বারে এক অনুষ্ঠানে রামদেব পতঞ্জলির তৈরি করোনা সংক্রমণ থেকে মুক্ত হওয়ার ওষুধের উদ্বোধন করে জানান, এই ওষুধ প্রয়োগের ফলে মাত্র সাত দিনে করোনা সংক্রমিত রোগী ১০০% সুস্থ হয়ে উঠবেন। অ্যাপ-এর মাধ্যমে তা ঘরে ঘরে পৌঁছে দেবে পতঞ্জলি, জানান যোগগুরু।

 

বন্ধ করুন