বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > Rishi Sunak on AI: 'প্রতিভাধরদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চিনে যেতে দেওয়া যাবে না ,' এআই নিয়ে বড় উদ্যোগে ব্রিটেন, সরব সুনক

Rishi Sunak on AI: 'প্রতিভাধরদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চিনে যেতে দেওয়া যাবে না ,' এআই নিয়ে বড় উদ্যোগে ব্রিটেন, সরব সুনক

ঋষি সুনক।  REUTERS/Phil Noble (REUTERS)

ঋষি সুনক বলেন, ‘বিশ্বের সবচেয়ে বড় এআই বিষয়ক প্রতিভাধরদের আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চিনের মতো দেশে যােতে দেওয়া যাবে না।’বার্মিংহামে কনফেডারেশন অফ ব্রিটিশ ইন্ডাস্ট্রির কনফারেন্সে প্রযুক্তিবিদ নারায়ণ মূর্তির জামাই ঋষি সুনক ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে এই বক্তব্য তুলে ধরেন।

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের দুনিয়ায় বিজ্ঞান গবেষণামূলক ক্ষেত্রে আরও একধাপ এগিয়ে গেল ব্রিটেন। সদ্য ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স নিয়ে একটি নতুন প্রকল্পে উদ্বোধন করেন। সেই প্রকল্পে, বিশ্বের মোট ১০০ প্রতিভাধর পেশাদারকে নিয়ে কর্মকাণ্ড চালানোর উদ্যোগ রয়েছে। আর সেই প্রকল্পের উদ্বোধনেই ঋষি বলেন, প্রতিভাধরদের চিন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশে যাওয়ার ঘটনা, আর হতে দেওয়া যাবে না। 

 অনুষ্ঠানে ঋষি সুনক বলেন, ‘বিশ্বের সবচেয়ে বড় এআই বিষয়ক প্রতিভাধরদের আর  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চিনের মতো দেশে যােতে দেওয়া যাবে না।’বার্মিংহামে কনফেডারেশন অফ ব্রিটিশ ইন্ডাস্ট্রির কনফারেন্সে প্রযুক্তিবিদ নারায়ণ মূর্তির জামাই ঋষি সুনক ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে এই বক্তব্য তুলে ধরেন। তিনি আশ্বাস দেন যে, ব্রিটেন এবার উচ্চতর প্রতিভাধরদের ও শিল্পোদ্যোগীদের সহজলভ্য ভিসা প্রাপ্তির কেন্দ্র হয়ে উঠবে।

 ব্রিটেনে শিল্পের উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে এই বার্তা দিয়েছেন ঋষি সুনক। অনুষ্ঠানে ঋষি বলেন, ‘এই কারণেই চ্যান্সেলার হিসাবে আম এআি স্কলারশিপ ও মাস্টার কনভারসান কোর্সেস নিয়ে উদ্যোগ নিয়েছিলাম। আমরা এমন এক উদ্যোগ নিচ্ছি যার হাত ধরে এআই নিয়ে বিশ্বের ১০০ জন সেরা প্রতিভাধরকে চিহ্নিত করতে পারা যাবে আর তাঁদের আনা যাবে (ব্রিটেনে)।’

ঋষি সুনক এদিনের অনুষ্ঠান থেকে সাফ জানিয়েছেন যে, এই ইস্যুতে তিনি অবৈধ অভিভাসন ইস্যুটিও একটি বড়সড় ফ্যাক্টর বলে মনে করেন। আর সেই সমস্যাকে সরিয়ে দিতে তিনি যে বদ্ধ পরিকর সেকথাও বলেন ঋষি সুনক। সব মিলিয়ে আর্টিফিশিয়াল ইন্টালিজেন্স যে আগামীর বিশ্ব গড়ে দিতে চলেছে, তার আঁচ মূলত সমস্ত বিজ্ঞানমনস্ক মহলেই রয়েছে। সেই জায়গা থেকে চিন বা আমেরিকার থেকে পিছিয়ে থাকতে চায় না ব্রিটেন।

 

 

 

 

বন্ধ করুন