বাংলা নিউজ > ময়দান > তৃণমূল স্তরে কোচিং করাব, তবে ভারতীয় দলে আর নয়- কেন এমন দাবি করলেন রবি শাস্ত্রী?
রবি শাস্ত্রী।

তৃণমূল স্তরে কোচিং করাব, তবে ভারতীয় দলে আর নয়- কেন এমন দাবি করলেন রবি শাস্ত্রী?

  • ভারতীয় দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার পর শোনা গিয়েছিল, কোনও একটি আইপিএল দলের কোচ হতে পারেন রবি শাস্ত্রী। তবে সে রকমও কিছু ঘটেনি। শুক্রবার ইডেন গার্ডেন্সে লেজেন্ডস লিগ ক্রিকেটের প্রদর্শনী ম্য়াচে উপস্থিত ছিলেন রবি শাস্ত্রী। সেখানে তিনি বলেছেন, ভারতীয় দলের হেড কোচ হতে তিনি আর রাজি নন।

২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত ছিটকে যাওয়ার পর রবি শাস্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় দলের সম্পর্ক ছিন্ন হয়। তাঁর মেয়াদও শেষ হয়ে গিয়েছিল। তাঁকে আর কোচের পদে রাখা হয়নি। বর্তমানে কোচিং থেকে অনেক দূরে রবি শাস্ত্রী। তিনি আবার তাঁর পুরনো কাজে ফিরে গিয়েছেন। ধারাভাষ্য করতে শুরু করেছেন। এর মাধেই আবার লেজেন্ডস লিগ ক্রিকেটের কমিশনার হিসেবেও যুক্ত হয়েছেন। কিন্তু তিনি আবার কবে কোচিংয়ে ফিরবেন, তা নিয়ে বিস্তর জল্পনা রয়েছে।

ভারতীয় দলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়ার পর শোনা গিয়েছিল, কোনও একটি আইপিএল দলের কোচ হতে পারেন রবি শাস্ত্রী। তবে সে রকমও কিছু ঘটেনি। শুক্রবার ইডেন গার্ডেন্সে লেজেন্ডস লিগ ক্রিকেটের প্রদর্শনী ম্য়াচে উপস্থিত ছিলেন রবি শাস্ত্রী। সেখানে তিনি বলেছেন, ভারতীয় দলের হেড কোচ হতে তিনি আর রাজি নন। তবে তাঁর কোচিং করানোর বাসনা রয়েছে। তবে তিনি তৃণমূল স্তরে কোচিং করাতে চান। ভারতের জন্য ক্রিকেটার তুলে আনার দায়িত্ব নিতে চান রবি শাস্ত্রী।

আরও পড়ুন: XYZ যা খুশি বলতে পারেন- হার্দিকের সঙ্গে তাঁর তুলনা টানায়, গাভাস্করকে খোঁটা রবির

শুক্রবার কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে একটি চ্যারিটি ম্যাচের মধ্যে দিয়ে এই প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। সেখানে রবি শাস্ত্রী বলেন, ‘ভারতীয় দলের কোচ হিসাবে আমার কাজ শেষ। সাত বছরে যা করার ছিল করেছি। আর পুরনো দায়িত্বে ফিরব না।’

এর সঙ্গেই তিনি যোগ করেছেন, ‘যদি সুযোগ পাই, তৃণমূল স্তরে কোচিং করাব। নতুন ক্রিকেটার তুলে আনব। তার জন্য আমার কিছু পরিকল্পনাও আছে। কিন্তু আর ভারতীয় দলের কোচিং নয়। এখন আমি দূরে বসে খেলা উপভোগ করতে চাই।’

আরও পড়ুন: কোহলির পাঁচ কেজি ওজন কমে গিয়েছে-হঠাৎ এমন আজব দাবি কেন করলেন ভারতের প্রাক্তন কোচ?

রবি শাস্ত্রীর কোচিংয়ে ভারত ৪৩টি টেস্ট খেলেছে। যার মধ্যে ২৫টিতে জয় পেয়েছে টিম ইন্ডিয়া। ১৩টি ম্যাচ হেরেছে। ৫টি ড্র হয়েছে। কোচ শাস্ত্রীর অধীনে ৭৬টি ম্যাচ একদিনের ম্যাচ খেলে ৫১টি জিতেছে ভারত। ২২টি ম্যাচ হেরেছে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ক্ষেত্রে আবার তাঁর কোচিংয়ে ৬৫টি ম্যাচ খেলে ৪৩টি ম্যাচ জিতেছে ভারত। ১৮টি ম্যাচ হেরেছেন কোহলিরা। সব মিলিয়ে তাঁর সময় কালে মোট ১৮৪টি ম্যাচের মধ্যে ভারত ১১৯টি ম্যাচই জিতেছে ভারত। ৫৩টি ম্যাচ হেরেছে। ৫টি ম্যাচ ড্র হয়েছে।

সামগ্রিক পরিসংখ্যান ছাড়া রবি শাস্ত্রীর কোচিংয়ে ভারতীয় দলের অন্যতম বড় সাফল্য হল পরপর দু'বার অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে টেস্ট সিরিজ জয়। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের প্রথম সংস্করণে রানার্সআপ হওয়া। ওডিআইতে অস্ট্রেলিয়ার, শ্রীলঙ্কা, নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজ জয়, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজ জয়। তবে আইসিস ট্রফিতে সাফল্য আসেনি শাস্ত্রীর কোচিংয়ে।

বন্ধ করুন