বাংলা নিউজ > ময়দান > Wasim Akram unhappy with Pakistanis: 'অন্যতম সেরার তকমা দেয় ভারত, পাকিস্তানের নয়া প্রজন্ম ফিক্সার বলে', আক্ষেপ আক্রমের

Wasim Akram unhappy with Pakistanis: 'অন্যতম সেরার তকমা দেয় ভারত, পাকিস্তানের নয়া প্রজন্ম ফিক্সার বলে', আক্ষেপ আক্রমের

ওয়াসিম আক্রম। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে এএফপি)

Wasim Akram unhappy with Pakistanis: নয়ের দশকে ওয়াসিম আক্রমের বিরুদ্ধে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ তুলেছিলেন পেসার আতাউর রহমান। আরও একাধিক অভিযোগে বিদ্ধ হয়েছিলেন। তবে তা থেকে মুক্তিও পেয়েছেন। তারপরও পাকিস্তানের নয়া প্রজন্ম তাঁকে ম্যাচ-ফিক্সার বলে, আক্ষেপ আক্রমের।

সর্বকালের অন্যতম সেরার তকমা দেয় ভারত, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশ। অথচ পাকিস্তানের নয়া প্রজন্ম ফিক্সার বলে আক্রমণ করে। তা নিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক তথা বোলার ওয়াসিম আক্রম।

ওয়াইড ওয়ার্ল্ড ফর স্পোর্টসের সাক্ষাৎকারে আক্রম বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড, ভারতের মতো ক্রিকেট খেলিয়ে দেশগুলি যখন (বিশ্বের সর্বকালের) সেরা একাদশ বা বিশ্বের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় নিয়ে কথা বলে, তখন নামও থাকে। কিন্তু পাকিস্তানের এই নয়া সোশ্যাল মিডিয়া প্রজন্ম আসল বিষয়টা না জেনেই প্রতিটি কমেন্টে বলে, আমরা জানি যে উনি (আক্রম) ম্যাচ ফিক্সার। লোকের মন্তব্য নিয়ে ভাবতে বসার পর্যায়টা পার করে এসেছি। আমার বউ বলেছিল যে তোমার ছেলে বড় হচ্ছে, তোমার মেয়ে বড় হচ্ছে, ওদের আসল বিষয়টা জানা উচিত।’

কখন ম্যাচ ফিক্সিং বিতর্কে জড়িয়েছিলেন আক্রম?

নয়ের দশকে আক্রমের বিরুদ্ধে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগ তুলেছিলেন পেসার আতাউর রহমান। তিনি অভিযোগ করেছিলেন, ম্যাচ ফিক্সিং করতে তাঁকে তিন-চার লাখ টাকার প্রস্তাব দিয়েছিলেন আক্রম। শুধু তাই নয়, আক্রমকে ঘিরে আরও জল্পনা ছড়িয়ে পড়েছিল। ভুয়ো চোট দেখিয়ে ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপে ভারতের বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ থেকে আক্রম সরে গিয়েছিলেন বলেও অভিযোগ উঠেছিল। ব্যাটিং অর্ডারে ‘উলটো-পালটা’ পরিবর্তন, ড্রেসিংরমে মোবাইল ব্যবহারের অভিযোগেও বিদ্ধ হয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: IPL-এ ভারতীয় তরুণরা এত পয়সা পাচ্ছে যে ভালো খেলার খিদে মরে যাচ্ছে, দাবি আক্রমের

পরিবর্তে অবশ্য সেই অভিযোগ থেকে মুক্তি পান বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা বোলার আক্রম। পরবর্তীতে আতাউর দাবি করেছিলেন, আক্রমের নামে অভিযোগ করতে তাঁকে বাধ্য করা হয়েছিল। যে আতাউরই পরবর্তীতে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের জন্য আজীবন নির্বাসিত হয়েছিলেন। ১৯৯৬ সালের বিশ্বকাপের কোয়ার্টারের ক্ষেত্রেও পাকিস্তানের তৎকালীন ফিজিয়ো জানিয়েছিলেন যে আক্রম সত্যিই চোট পেয়েছিলেন। সেই পরিস্থিতিতে যাবতীয় অভিযোগ থেকে মুক্তি হন আক্রম। তবে তাঁকে জরিমানা গুনতে হয়েছিল।

আরও পড়ুন: Viral Video: আক্রমকে ‘জাতীয় ধোপা’ বললেন সঞ্চালক, কিংবদন্তির উত্তর শুনলে হেসে গড়িয়ে পড়বেন

সেই বিষয়টি নিয়ে একাধিকবার আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন আক্রম। সপ্তাহখানেক আগেই দ্য গার্ডিয়ানে একটি সাক্ষাৎকারে আক্রম জানিয়েছেন, ম্যাচ ফিক্সিংয়ের যে অভিযোগ উঠেছিল, তা তাঁর কাছে 'ভয়াবহ' ছিল। তিনি বলেছিলেন, 'পাকিস্তানে এখনও জল্পনা আছে যে ও তো ম্যাচ ফিক্সার। এটা আমায় বেদনা দেয়।'

বন্ধ করুন