বাংলা নিউজ > ময়দান > 2019 WC-এ এবি অবসর ভাঙতে চাইলেও কেন সুযোগ দেওয়া হয়নি, জানালেন প্রধান নির্বাচক
এবি ডি'ভিলিয়ার্স।
এবি ডি'ভিলিয়ার্স।

2019 WC-এ এবি অবসর ভাঙতে চাইলেও কেন সুযোগ দেওয়া হয়নি, জানালেন প্রধান নির্বাচক

  • দক্ষিণ আফ্রিকার দল ঘোষণার দিন দুয়েক আগে বিষয়টি সেই সময়কার প্রধান নির্বাচক লিন্ডা জন্ডির নজরে এনেছিলেন সেই সময়কার অধিনায়ক ফ্যাফ ডু'প্লেসি। কিন্তু তিনি এই প্রস্তাবে রাজি হননি।

ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দিয়ে মাত্র ৩৪ বছর বয়সে ২০১৮ সালের ২৩ মে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সব ফর্ম্যাট থেকেই অবসর নিয়েছিলেন এবি ডি'ভিলিয়ার্স। কারণ হিসেবে শারীরিক ও মানসিক ক্লান্তির কথাই বলেছিলেন তখন। কিন্তু ২০১৯ বিশ্বকাপে তিনি আবার অবসর ভেঙে ফিরতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সেই সময়ে রাজি হননি দক্ষিণ আফ্রিকার নির্বাচকেরা। 

দক্ষিণ আফ্রিকার দল ঘোষণার দিন দুয়েক আগে বিষয়টি সেই সময়কার প্রধান নির্বাচক লিন্ডা জন্ডির নজরে এনেছিলেন সেই সময়কার অধিনায়ক ফ্যাফ ডু'প্লেসি। কিন্তু তিনি এই প্রস্তাবে রাজি হননি। কারণ তখন টিম ঘোষণা না হলেও মোটামুটি তৈরি হয়ে গিয়েছিল। সেই সময়ে কাউকে বাদ দেওয়াটা অন্যায় হত বলে দাবি করেছেন লিন্ডা জন্ডি। 

এবি-র ২০১৯-এ দলে ফিরতে চাওয়া এবং তাঁকে দলে না নেওয়া নিয়ে না জানি কত বিতর্ক হয়েছিল। সেই প্রসঙ্গেই এ বার মুখ খুলেছেন লিন্ডা জন্ডি। তিনি বলেছেন, ‘যখন এবি ২০১৭ সালে ক্রিকেট থেকে হঠাৎ করেই বিরতি নিয়েছিল, তখন ও আমাকে জানায়নি। আমি ওর সঙ্গে যোগাযোগ করে বলি, তুমি যেটা করেছো আমি তাতে খুশি নই। ও তখন ক্ষমা চেয়ে নেয়। তার পর বিশ্বকাপ ছিল। যেটা একটা বড় স্টোরি হয়ে গিয়েছে।’ আর সেই গল্পটাই বিস্তারিত ভাবে জানিয়েছেন লিন্ডা জন্ডি।

তিনি বলেছেন, ‘অধিনায়ক (ফ্যাফ ডু'প্লেসি) আমার কাছে এসে বলেছিল, বিশ্বকাপ টিমে খেলতে ও রাজি রয়েছে, ওকে টিমে রাখা হোক। আমি সেই প্রস্তাব নাকচ করে দি। কারণ এর আগে এবি আমার কাছে এসে বলেছিল, ও অবসর নিতে চায়। তখন আমি ওকে বলেছিলাম, ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে তোমাকে দলের প্রয়োজন হবে। যদি মাঝে কিছু সিরিজ না খেলে থেকে যাও, তাতেও চলবে। এবং বিশ্বকাপের পর তুমি অবসর নিতে পারো। কিন্তু ও বলেছিল, না আমি এখনই অবসর নিতে চাই। এর পর হঠাৎ করে ফ্যাফ এসে আমাকে বলেছিল, এবি ফিরতে চায়। তখন আমি সেই প্রস্তাব খারিজ করি। কারণ যারা তখন স্কোয়াডে ছিল, তাদের সঙ্গে অন্যায় করা হতো।’

বন্ধ করুন