বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘এই ব্যক্তিটি কে?’, ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের পর ধোনিকে চিনতেই পারেননি প্রিয় বন্ধু সুরেশ রায়না
বিশ্বকাপ ট্রফি ও ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে ধোনি। ছবি- ফেসবুক।
বিশ্বকাপ ট্রফি ও ম্যাচ সেরার পুরস্কার হাতে ধোনি। ছবি- ফেসবুক।

‘এই ব্যক্তিটি কে?’, ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের পর ধোনিকে চিনতেই পারেননি প্রিয় বন্ধু সুরেশ রায়না

  • বিশ্বকাপ জিতেই নিজের চুল কেটে ফেলেন ধোনি।

ভারতের ঘরের মাটিতে ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে বিশ্বজয়ের পর এক দশক কেটে গিয়েছে। তবে ভারতীয় সমর্থকদের মনে সেই ঘটনা এথনও তাজা। বিশ্বজয়ের পরের দিন গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়ার সামনে নতুন লুকে সমর্থকদের অবাক করে দিয়েছিলেন ধোনি। 

২৮ বছর পর ভারতকে বিশ্বকাপ জেতানোর পর সকালে ফটোশুটের সময় গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়ার সামনে চুল কামিয়ে, ধোনিকে সম্পূর্ণ ভিন্ন লুকে দেখা যায়। শুধু সমর্থকরাই নন, তাজ্জব হয়েছিলেন ধোনির দলের সতীর্থরাও। সেই ঘটনার কথা মনে করিয়েই ধোনির সতীর্থ ও বন্ধু সুরেশ রায়না জানান তিনি নাকি ধোনিকে প্রথমে ধোনিকে চিনতেই পারেননি। 

‘আমাদের ওয়াংখেড়ে থেকে হোটেলে পৌঁছতে প্রায় আড়াই ঘন্টা লেগেছিল। হোটেলে পৌঁছেই আমি নিজের রুমে চলে যাই ও স্নান করি। স্নান সেরে বেরিয়ে আমার সবাই এক জায়গায় বসেছিলাম। সেইসময় আমার নজর এক টাকওয়ালা ব্যক্তির দিকে যায়। আমি মনে মনে ভাবছিলাম এই ব্যক্তিটি কে? তারপর কিছুক্ষণ পড়ে বুঝতে পারি যে ওটা এম এস ধোনি। ও একদিকে বসেছিল এবং ওর কাটা চুল আরেকপাশে রাখা ছিল। মনে ও কোনরকম মানত বা কিছু করেছিল।’

ফাইনালের রাতে মাহি অনবদ্য ৯১ রানের একটি অপরাজিত ইনিংস খেলে ভারতকে জয় এনে দেয়। শ্রীলঙ্কার ২৭৫ রান তাড়া করতে প্রথমে একটু চাপে পড়লেও ম্যাচ জিতে নেয় ভারতই। সেই শেষ, তারপর এখনও অবধি চেষ্টা করে সেমিফাইনাল পৌঁছেও দুইবারই বিশ্বকাপে হতাশ হয়েছে ভারতীয় দল। বছরের শেষের দিকে সেই তকমা ঘোচাতে বদ্ধপরিকর হয়ে টি-টোয়ন্টি বিশ্বকাপে নামবে কোহলিরা।

বন্ধ করুন