বাংলা নিউজ > ভাগ্যলিপি > Kartik Purnima: কার্তিক পূর্ণিমায় কী করবেন আর কী করবেন না? জেনে নিন সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম

Kartik Purnima: কার্তিক পূর্ণিমায় কী করবেন আর কী করবেন না? জেনে নিন সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ নিয়ম

শাস্ত্র মতে পূর্ণিমা তিথিতে দান করা শুভ বলে মনে করা হয়।  

Kartik Purnima: কার্তিক পূর্ণিমা কবে? জেনে নিন এখান থেকে,কার্তিক পূর্ণিমায় কী করবেন আর কী করবেন না।

কার্তিক মাসের শুক্লপক্ষের পূর্ণিমা তিথিকে কার্তিক পূর্ণিমা বলা হয়। এ বছর কার্তিক পূর্ণিমা ৮ই নভেম্বর। এটি বিশ্বাস করা হয় যে কার্তিক পূর্ণিমার দিন পবিত্র নদীতে স্নান এবং দান করলে সুখ এবং সৌভাগ্য আসে। কার্তিক পূর্ণিমা দেব দীপাবলি নামেও পরিচিত। ধর্মীয় বিশ্বাস অনুসারে, এই দিনে ভগবান শিব রাক্ষস ত্রিপুরাসুরকে বধ করেছিলেন। তাই এটি ত্রিপুরী বা ত্রিপুরারি পূর্ণিমা নামেও পরিচিত।

অন্য একটি বিশ্বাস অনুসারে, কার্তিক পূর্ণিমার দিনে ভগবান শ্রী হরি বিষ্ণু মৎস্য অবতার গ্রহণ করেন। কার্তিক পূর্ণিমা তিথি ভগবান বিষ্ণু এবং মা লক্ষ্মীর খুব প্রিয়। এই দিনে কিছু কাজ করলে জীবনে সমৃদ্ধি আসে, আবার কিছু কাজ করাও নিষিদ্ধ। এমন পরিস্থিতিতে চলুন জেনে নেওয়া যাক এই দিনে কী করবেন আর কী করবেন না।

দান

শাস্ত্র মতে পূর্ণিমা তিথিতে দান করা শুভ বলে মনে করা হয়। এই দিনে খাদ্য, দুধ, ফল, চাল, তিল ও আমলকি দান করলে পুণ্য লাভ হয়।

একটি প্রদীপ দান করুন

কার্তিক পূর্ণিমায় দেব দীপাবলিও বলেও পালিত হয়। এমন পরিস্থিতিতে, এই দিনে, পবিত্র নদী বা ঈশ্বরের স্থানে গিয়ে একটি প্রদীপ দান করা উচিত। বিশ্বাস করা হয় যে এটি দেবতাদের খুশি করে এবং আপনার জীবনের সমস্যাগুলি শেষ করে।

মহালক্ষ্মী স্তুতি পাঠ

দেবী লক্ষ্মীকে খুশি করার জন্য কার্তিক পূর্ণিমা তিথিকে শ্রেষ্ঠ বলে মনে করা হয়। এমন অবস্থায় কার্তিক পূর্ণিমায় দেবী লক্ষ্মীকে খুশি করতে মহালক্ষ্মী স্তূতি পাঠ করা উচিত।

কার্তিক পূর্ণিমায় কি করবেন না

কার্তিক পূর্ণিমার দিনে মাংস, মদ, ডিম, পেঁয়াজ, রসুনের মতো তামসিক খাবার ভুলেও খাওয়া উচিত নয়।

কার্তিক পূর্ণিমার দিনে চন্দ্রদেবের আশীর্বাদ পেতে এই দিনে ব্রহ্মচর্য পালন করুন। সম্ভব হলে মাটিতে ঘুমান।

এই দিনে বাড়িতে ঝগড়া করা উচিত নয়।

কার্তিক পূর্ণিমার দিনে গরীব, অসহায়, বৃদ্ধ বা কারো সাথে কড়া কথা বলবেন না বা কাউকে অপমান করবেন না।

 

বন্ধ করুন