বাঁ দিকে বিজেপির পোস্ট করা ফেক ভিডিয়ো। ডান দিকে পুলিশকে নিজের কথা বলছেন মোবারক মণ্ডল।
বাঁ দিকে বিজেপির পোস্ট করা ফেক ভিডিয়ো। ডান দিকে পুলিশকে নিজের কথা বলছেন মোবারক মণ্ডল।

রাজ্য বিজেপির অফিশিয়াল পেজে পোস্ট হল ফেক ভিডিয়ো, হাতে নাতে ধরল পুলিশ

  • তদন্তে নেমে উত্তর ২৪ পরগনা পুলিশ জানতে পারে ভিডিয়োটি সাজানো। যে বৃদ্ধকে ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে তিনি একজন যাত্রাশিল্পী।

করোনা পরিস্থিতির নিয়ে ভুয়ো ভিডিয়ো শেয়ার করে ইতিমধ্যে পুলিশি তদন্তের মুখে পড়েছেন বিজেপির একাধিক নেতা ও সাংসদ। এবার ভুয়ো ভিডিয়ো ছড়ানোর অভিযোগ খোদ বিজেপির রাজ্য শাখার অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ ও টুইটার হ্যান্ডেলের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, এক যাত্রাশিল্পীকে দিয়ে অনাহারের অভিনয় করিয়ে সেই ভিডিয়ো পোস্ট করার অভিযোগ রাজ্য বিজেপির আইটি সেলের বিরুদ্ধে। ঘটনায় ১ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত ১৭ এপ্রিল রাত ১১টা ৫৫ মিনিটে রাজ্য বিজেপির অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে পোস্ট করা হয় একটি ভিডিয়ো। তাতে দেখা যাচ্ছে, ২ দিন ধরে অনাহারে রয়েছেন বলে এক বৃদ্ধ খাবারের জন্য কাকুতি মিনতি করছেন। এমনকী মুখ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করছেন, হয় খাবার দিন, নয় গুলি করে মেরে ফেলুন। এই বলতে বলতে কান্নায় ভেঙে পড়ছেন বৃদ্ধ। হৃদয়বিদারক এই ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়ে ফোনে ফোনে। তীব্র প্রতিক্রিয়া জানাতে থাকেন অনেকেই। ঘটনার তদন্ত শুরু করে পুলিশ।


তদন্তে নেমে উত্তর ২৪ পরগনা পুলিশ জানতে পারে ভিডিয়োটি সাজানো। যে বৃদ্ধকে ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে তিনি একজন যাত্রাশিল্পী। পুলিশকে তিনি জানিয়েছেন, দিন কয়েক আগে কিছু ছেলে এসে আমাকে অনাহারের অভিনয় করে দেখাতে অনুরোধ করে। আমি তা করে দেখাই। তখন যুবকেরা সেই অভিনয়ের ভিডিয়োগ্রাফি করে। সেই ভিডিয়ো পরে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

বৃদ্ধ এও জানিয়েছেন, রাজ্য সরকারের ঘোষণা মতো প্রাপ্য সমস্ত খাদ্যশস্য পেয়েছেন তিনি। প্রশাসনের বিরুদ্ধে তাঁর কোনও অভিযোগ নেই।


রাজ্য বিজেপির অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ ও টুইটার হ্যান্ডেলে ভুয়ো ভিডিয়ো প্রচারের পর কোনও পদক্ষেপ করা যায় কি না তা ভেবে দেখছে প্রশাসন। ঘটনায় ১ ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

তবে বিজেপির বিরুদ্ধে ভুয়ো ভিডিয়ো ছড়ানোর অভিযোগ নতুন নয়। এর আগে উসকানিমূলক ভুয়ো ভিডিয়ো ছড়ানোয় বিজেপি নেতা অনুপম হাজরা ও বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ।



বন্ধ করুন