বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > চা-চক্রে দিলীপ ঘোষ মাইক্রোফোন হাতে নিতেই চলে গেল বিদ্যুৎ
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

চা-চক্রে দিলীপ ঘোষ মাইক্রোফোন হাতে নিতেই চলে গেল বিদ্যুৎ

  • দিলীপবাবুর চা-চক্রে বিভ্রাট যদিও নতুন ঘটনা নয়। বিভিন্ন জায়গায় তাঁকে নানা বাধার মুখে পড়তে হয়েছে। কখনো তাঁর চা-চক্রে হামলা চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা।

ফের দিলীপ ঘোষের চা চক্রে বিভ্রাট। এবার সোনারপুরে। বৃহস্পতিবার সকালে সোনারপুরের রূপনগরে দিলীপ ঘোষ মাইক্রোফোন হাতে নিতেই চলে যায় বিদ্যুৎ। এর পর খালি গলাতেই সমর্থকদের সামনে বক্তব্য রাখেন দিলীপবাবু। সারদাকাণ্ড নিয়ে তুমুল আক্রমণ করেন তৃণমূলকে।

এদিন দিলীপ ঘোষের চা-চক্র উপলক্ষ্যে মঞ্চ বেঁধেছিলেন স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা। নামে চা-চক্র হলেও ছিল মাইক্রোফোনের আয়োজন। সকাল সকাল দলের রাজ্য সভাপতির কথা শুনতে সেখানে জমা হয়েছিল থিকথিকে ভিড়। দিলীপ ঘোষ সেখানে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে উঠতেই চলে যায় বিদ্যুৎ সংযোগ। 

এর পর তৃণমূলকে কাঠগড়ায় তুলে দিলীপবাবু বলেন, ‘দেখো, লাইন কেটে দিয়েছে। আমি খালি গলায় কথা বলছি।‘ এর পর চিটফান্ড কাণ্ড নিয়ে তৃণমূলকে আক্রমণ করেন দিলীপবাবু। বলেন, ‘তৃণমূলের নেতারা সিবিআইয়ের ভয়ে রাতে ঘুমোতে পারছে না।’

দিলীপবাবুর চা-চক্রে বিভ্রাট যদিও নতুন ঘটনা নয়। বিভিন্ন জায়গায় তাঁকে নানা বাধার মুখে পড়তে হয়েছে। কখনো তাঁর চা-চক্রে হামলা চালিয়েছে দুষ্কৃতীরা। ভাঙচুর করা হয়েছে তাঁর গাড়ি। কখনো পুলিশ ভেঙে দিয়েছে চা-চক্রের মঞ্চ। গত রবিবার বোলপুরে চা-চক্রে যোগ দিতে গিয়ে দিলীপবাবু দেখেন, এলাকার সমস্ত চায়ের দোকান বন্ধ। বৃহস্পতিবার ফের ঘটল বিভ্রাট।

ঘটনায় জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেছে তৃণমূল। স্থানীয় বিদ্যুৎ দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, কেন বিদ্যুৎ বিভ্রাট, তদন্ত হচ্ছে।

 

বন্ধ করুন