বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আমফানের ত্রাণে দলবাজির অভিযোগ, তৃণমূল পার্টি অফিসে ব্যাপক ভাঙচুর চালাল জনতা
প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

আমফানের ত্রাণে দলবাজির অভিযোগ, তৃণমূল পার্টি অফিসে ব্যাপক ভাঙচুর চালাল জনতা

  • বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মোহনপুরের কালীবাড়ি এলাকায় তৃণমূল পার্টি অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয় মানুষ। কিছুক্ষণ পর পার্টি অফিসে ঢুকে শুরু হয় ত্রাণের চাল-ডাল-কাপড় লুঠপাট।

আমফানের ক্ষতিপূরণে দলবাজির অভিযোগ শাসকদলের নেতাদের বিরুদ্ধে। আর সেই ক্ষোভেই তৃণমূল পার্টি অফিসে ব্যাপক ভাঙচুর চালাল জনতা। লুঠ হল ত্রাণ সামগ্রী। বেশ কিছুক্ষণ পর পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। ততক্ষণে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে পার্টি অফিস। উত্তর ২৪ পরগনার মিনাখাঁয় বৃহস্পতিবারের ঘটনা। 

মিনাখাঁর মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ। ঘূর্ণিঝড় আমফান চলে যাওয়ার ২০ দিন পরও স্থানীয় বুড়ি নদীর বাঁধ সারিয়ে উঠতে পারেনি প্রশাসন। সেখান থেকে গ্রামে ঢুকছে জল। তাতে বানভাসি বহু মানুষ। তাদের সাহায্য করার পরিবর্তে ত্রাণ নিয়ে দলবাজি করছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারা। 

এই অভিযোগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মোহনপুরের কালীবাড়ি এলাকায় তৃণমূল পার্টি অফিসের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্থানীয় মানুষ। কিছুক্ষণ পর পার্টি অফিসে ঢুকে শুরু হয় ত্রাণের চাল-ডাল-কাপড় লুঠপাট। এর পর পার্টি অফিসটিতে ব্যাপক ভাঙচুর চালান স্থানীয়রা। চেয়ার টেবিলের পাশাপাশি ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় টেলিভিশনটিও। এর পর ওই পার্টি অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেন বিক্ষোভকারীরা। খবর পেয়ে হাড়োয়া থানা থেকে পুলিশকর্মীরা গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। 

তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপির মদতে বিরোধী দলগুলি একজোট হয়ে তাদের পার্টি অফিসে হামলা চালিয়েছে। ত্রাণে দলবাজির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন শাসকদলের স্থানীয় নেতারা। বিজেপির পালটা দাবি, তৃণমূলের দলবাজি ও দুর্নীতিতে অতিষ্ঠ হয়ে পার্টি অফিসে হামলা চালিয়েছে সাধারণ মানুষ। 

 

বন্ধ করুন