বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Dibyendu Adhikari: দিব্যেন্দুর মুখে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম, কারণটা কী?

Dibyendu Adhikari: দিব্যেন্দুর মুখে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম, কারণটা কী?

দিব্যেন্দু অধিকারী (টুইটার)

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর 'মানসিক সংস্থতা' কামনা করে কার্ড ও গোলাপ ফুল পাঠানোর নিদান দিয়েছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ। তার পর দলের কর্মী-সমর্থকরা সোমবার শুভেন্দুর শান্তিকুঞ্জের বাড়িতে হাজির হয়েছিলেন 'গেট ওয়েল সুন' লেখা কার্ড ও গোলাপ ফুল নিয়ে।

বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর 'মানসিক সংস্থতা' কামনা করে কার্ড ও গোলাপ ফুল পাঠানোর নিদান দিয়েছিলেন তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক কুণাল ঘোষ। তার পর দলের কর্মী-সমর্থকরা সোমবার শুভেন্দুর শান্তিকুঞ্জের বাড়িতে হাজির হয়েছিলেন 'গেট ওয়েল সুন' লেখা কার্ড ও গোলাপ ফুল নিয়ে। এই জমায়েত নিয়ে হাইকোর্টে সিবিআই তদন্তেরও দাবি করেছেন বিরোধী দলনেতা। এবার এই জমায়েতের জন্য নাম না করে কুণাল ঘোষের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানালেন দিব্যেন্দু অধিকারী। আর তখনই তাঁর গলায় শোনা গেল মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়ের নাম।

এ দিন দিব্যেন্দু বলেন,' এখনও আমি যে দল করি, সেই দলের নতুন সংযোজিত এক নেতা তৈরি হয়েছেন। তিনি নাকি বলেছেন, শুভেন্দু অধিকারীকে গেট ওয়েল সুন কার্ড পাঠাবেন। কিন্তু অতীত হয়ত তিনি ভুলে গিয়েছেন। তিনি আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে কদর্য ভাষায় আক্রমণ করেছেন। কখনও প্রিজন ভ্যানে ওঠার সময়, কখনও পুলিশের সামনে দাঁড়িয়ে চিৎকার করে। সেই লোকের কথায়, প্রতিক্রিয়ায় এই ঘটনা ঘটবে, তা আমি বিশ্বাস করতে পারি না।' তাঁর মতে 'এটি অত্যন্ত বিচ্ছিন্ন ঘটনা।'

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন,'পূর্ব মেদিনীপুর জেলা অত্যন্ত শান্তির জেলা। এই জেলায় শান্তিকামী মানুষ থাকেন। স্বাধীন তাম্রলিপ্ত সরকার প্রতিষ্ঠা হয়েছিল এই জেলায়। আমার পরিবারের সঙ্গে স্বাধীনতা সংগ্রামের যোগ রয়েছে। আমরা কোনও দিন কারও কাছে মাথা ঝোঁকাইনি আগামীদিনেও ঝোঁকাবো না। যাঁরা এসেছিলেন তাঁরা যদি মনে করতেন আমার সঙ্গে দেখা করবেন আমি অ্যাপায়ন করতাম।' ঘটনার দিন পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন সাংসদ।

বন্ধ করুন