বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'শিখ ও হিন্দুদের ভিটেমাটি সুরক্ষিত', ঘোষণা রাজ্য বিজেপির NRC পুস্তিকায়
এনআরসির বিরুদ্ধে কলকাতায় প্রতিবাদ (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
এনআরসির বিরুদ্ধে কলকাতায় প্রতিবাদ (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

'শিখ ও হিন্দুদের ভিটেমাটি সুরক্ষিত', ঘোষণা রাজ্য বিজেপির NRC পুস্তিকায়

  • পুস্তিকা প্রকাশের পরই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। তৃণমূল কংগ্রেস, সিপিআইএমের অভিযোগ, মানুষকে ইচ্ছাকৃতভাবে বিভ্রান্ত করছে বিজেপি।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) রূপায়ণের পরই জাতীয় নাগরিকপঞ্জী (এনআরসি) তৈরির প্রক্রিয়া শুরু হবে। বিজেপির বাংলা পুস্তিকায় এমনই দাবি করা হয়েছে। যদিও গেরুয়া শিবিরের হিন্দি ভাষার পুস্তিকায় এনআরসি নিয়ে কোনও উচ্চবাচ্য করা হয়নি।

আরওএনআরসি হলে কী কী নথি লাগবে? জানাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পরস্পরবিরোধী মন্তব্যের জেরে এনআরসি তৈরির বিষয়ে নতুন করে সংশয় তৈরি হয়েছিল। যদিও বঙ্গ বিজেপি দাবি করছিল, এনআরসি হবেই।

আরও পড়ুন : রাজ্য না মানলেও NPR ঘোষণা কেন্দ্রের, জেনে নিন শর্তাবলী

এরইমধ্যে রবিবার রাজ্য বিজেপির তরফে বাংলায় লেখা ২৩ পাতার একটি পুস্তিকা প্রকাশ করা হয়। সেদিনই দিল্লি থেকে হিন্দিতে লেখা ৩০ পাতার একটি পুস্তিকা প্রকাশ করেন কমল সন্দেশ। মূলত হিন্দি পুস্তিকার বঙ্গানুবাদ করে তা বাংলাতে প্রকাশ করা হয়। শুধুমাত্র একটি অংশ ছাড়া। তা নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

আরও পড়ুন : NPR-NRC-এর মধ্যে ফারাক কী? কেন বিরোধিতা রাজ্যের? জানুন খুঁটিনাটি

বাংলা পুস্তিকা শেষ পৃষ্ঠায় লেখা রয়েছে, 'এরপর কি এরআরসি আসছে? তা কতটা প্রয়োজনীয়? অসমের মতো কি হিন্দুদের জেলে যেতে হবে?' সেই প্রশ্নের জবাবে বলা হয়েছে, 'হ্যাঁ, এরপর এনআরসি আসছে। অত্যন্ত এটা কেন্দ্রীয় সরকারের লক্ষ্য।' এখানেই শেষ নয়, বইয়ের একেবারে শেষে লেখা রয়েছে, 'সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের পর কোনও হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান বা পারসির নাম সন্দেহজনক ভোটার তালিকায় থাকবে না। শিখ ও হিন্দুদের ভিটেমাটি সুরক্ষিত রয়েছে।'

আরও পড়ুন : রাজ্যসভায় পাশ, কী সংশোধন হল নাগরিকত্ব বিলে

পুস্তিকা প্রকাশের পরই শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা। তৃণমূল কংগ্রেস, সিপিআইএমের অভিযোগ, মানুষকে ইচ্ছাকৃতভাবে বিভ্রান্ত করছে বিজেপি। তৃণমূল নেতা তাপস রায় বলেন, 'মানুষের সঙ্গে যে খেলা খেলতে চাইছে বিজেপি, তা সামনে নিয়ে এসেছে পুস্তিকা। কেন শুধুমাত্র বাংলা পুস্তিকায় এনআরসির উল্লেখ রয়েছে? দেশজুড়ে কেন সেই পুস্তিকা বণ্টন করা হয়নি? বিজেপি প্রমাণ করল, ওরা কতটা বাঙালি-বিরোধী।

আরও পড়ুন : পরিচয়পত্র এবং ঠিকানার প্রমাণ ছাড়াই আধার কার্ড, জানুন কী ভাবে

একই সুরে বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, 'স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর উলটো কথা বলছেন প্রধানমন্ত্রী। রাজ্য বিজেপির সভাপতি আবার প্রধানমন্ত্রীর উলটো কথা বলছেন। বিজেপি মিথ্যা ফাঁস হয়ে গিয়েছে।'

আরও পড়ুন : প্রধানমন্ত্রী ঠিকই বলেছেন, এখনও এনআরসি নিয়ে কোনও আলোচনা হয়নি- অমিত শাহ

বিতর্কের মুখে অবশ্য দমতে নারাজ রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, 'অনুপ্রবেশকারীদের তাড়ানোর বিষয়ে রাজ্যবাসীর কাছে আমরা প্রতিজ্ঞা করেছি। প্রতিজ্ঞা করে আমরা পিছিয়ে যেতে পারি না। যাই রাজনৈতিক বিতর্ক হোক না কেন, জাতীয় নিরাপত্তার প্রশ্নে আমরা আপোস করতে পারব না।'

বন্ধ করুন