বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পথ আটকাল পুলিশ, নবদম্পতিকে অনুরোধ করলেন টুম্পা সোনা গান বাজাবেন না
মারুতি ভ্যানের দরজা খুলতেই দেখা মিলল নবদম্পতির।

পথ আটকাল পুলিশ, নবদম্পতিকে অনুরোধ করলেন টুম্পা সোনা গান বাজাবেন না

  • লকডাউনে গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতেই পুলিশের তল্লাশি অভিযান চলছিল। আর সেখানেই মারুতি ভ্যানের দরজা খুলতেই দেখা মিলল নবদম্পতির।

করোনাভাইরাসের চেইন ভাঙতে কার্যত লকডাউনে গিয়েছে রাজ্য। সুতরাং আজ থেকে সমস্ত গণপরিবহণ বন্ধ করা হয়েছে। জারি হয়েছে একাধিক নিষেধাজ্ঞা। তারপরেও লকডাউনেই বিয়ে হল রানিগঞ্জে। বিয়ের পর নবদম্পতি বাড়ি ফিরছেন ভরদুপুরে। রাস্তায় তখন পুলিশের টহলদারি। আর তার জেরেই আটকে গেল গাড়ি। আর নবদম্পতিকে স্যানিটাইজার দিয়ে পুলিশ অনুরোধ করলেন, ‘‌বাড়িতে গিয়েই ডিজে বক্সে টুম্পা সোনা গান বাজাবেন না। বেঁচে থাকলে অনেক আনন্দ উল্লাস করতে পারবেন।’‌

লকডাউনে গাড়ি চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতেই পুলিশের তল্লাশি অভিযান চলছিল। আর সেখানেই মারুতি ভ্যানের দরজা খুলতেই দেখা মিলল নবদম্পতির। ওই দম্পতি আসানসোলের ঘাঘরবুড়ি মন্দির থেকে বিয়ে করে ফিরছেন রানিগঞ্জে। দুজনের হাত স্যানিটাইজ করে কর্তব্যরত পুলিশের আবেদন, ‘‌ভোজ করবেন না। ভোজ করলেও ৫০ জনের বেশি নয়। মাস্ক পড়বেন। স্যানিটাইজার রাখবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন। আর গান–বাজনা বন্ধ। যদি মানুষ বেঁচে থাকে অনেক আনন্দ করার সুযোগ পাবেন।’‌

করোনাভাইরাসে মানুষ মারা যাচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে ওই পুলিশ অফিসারের পরামর্শ, ‘‌একবছর পর বিবাহবার্ষিকী। ২৫ বছর পর সিলভার জুবলি হবে। তারপরে গোল্ডেন জুবলি। কিন্তু এগুলি তখনই সম্ভব হবে বেঁচে থাকলে। এখন অবস্থা খারাপ। একদম জমায়েত করবেন না। ডিজেতে টুম্পা সোনা গান বাজিয়ে আনন্দ করবেন না। এখন এটা করার সময় নয়। সবাই সুস্থ থাকুন। আনন্দ করার দিন আসবে। এখন মানুষ বড় বিপদে আছে।’‌

বন্ধ করুন