বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > লোকাল ট্রেন চালুর মধ্যেই করোনায় আক্রান্ত একাধিক স্টেশন মাস্টার, কপালে ভাঁজ
লোকাল ট্রেন চালুর মধ্যেই করোনায় আক্রান্ত একাধিক স্টেশন মাস্টার, কপালে ভাঁজ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)
লোকাল ট্রেন চালুর মধ্যেই করোনায় আক্রান্ত একাধিক স্টেশন মাস্টার, কপালে ভাঁজ (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য রয়টার্স)

লোকাল ট্রেন চালুর মধ্যেই করোনায় আক্রান্ত একাধিক স্টেশন মাস্টার, কপালে ভাঁজ

আজ বুধবার থেকে চালু হয়েছে শহরতলির লোকাল ট্রেন পরিষেবা।

আজ বুধবার থেকে চালু হয়েছে শহরতলির লোকাল ট্রেন পরিষেবা। আর তারইমধ্যে কয়েকজন স্টেশন-মাস্টারের করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার খবর মিলল। তা নিয়েই এখন শোরগোল পড়ে গিয়েছে। শিয়ালদহ–বনগাঁ শাখার বামনগাছি, দত্তপুকুর, মধ্যমগ্রামের মতো কয়েকটি স্টেশনের স্টেশন-মাস্টার করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন। তার জেরে বিকল্প হিসেবে কোথাও অন্য স্টেশনের মাস্টারকে দিয়ে, কোথাও আবার স্টেশন মাস্টারদের অতিরিক্ত দায়িত্ব দিয়ে পরিষেবা শুরু করেছে রেল।

স্টেশন মাস্টারদের পাশাপাশি ওই শাখায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন রেলের একাধিক কর্মী এবং সাফাইকর্মীও। রেলের দাবি, সেই অবস্থায় মসৃণ থাকবে যাত্রী পরিষেবা। কিন্তু এখন প্রশ্ন হল, এই সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার কারণ কী?‌ জানা গিয়েছে, লোকাল ট্রেন চালু করতে গিয়ে দীর্ঘ কয়েক মাস বন্ধ থাকা জায়গায় স্যানিটাইজ করা হয়েছে। তারপর সেখানে কাজ শুরু করতেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

এই রাজ্যে করোনা সংক্রমণের শীর্ষে রয়েছে কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনা। শুরু থেকেই এই ট্রেন্ড দেখা গিয়েছে। সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় শিয়ালদহ–বনগাঁ শাখার বামনগাছির এক স্টেশন মাস্টারের। তাঁর বিকল্প হিসেবে একজন স্টেশন মাস্টারকে এনে বিশেষ ট্রেনের পরিষেবা দিচ্ছিল রেল। তিনিও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মধ্যমগ্রামের একজন স্টেশন মাস্টার করোনা আক্রান্ত হয়ে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন।

পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক নিখিল চক্রবর্তী বলেন, ‘হ্যাঁ, বিষয়টি সঠিক। কয়েকজন স্টেশন মাস্টার ও কর্মী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁরা শীঘ্রই সুস্থ হয়ে কাজে যোগ দেবেন। সংক্রমণ যাতে না ছড়ায়, সে দিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে।’

বন্ধ করুন