বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ট্র‌্যাফিক পুলিশকে ফ্লুরোসেন্ট জ্যাকেট পরতে হবে, সোল্ডার লাইট জ্বালাতেও নির্দেশ
ফ্লুরোসেন্ট জ্যাকেট পরা ট্র‌্যাফিক পুলিশ

ট্র‌্যাফিক পুলিশকে ফ্লুরোসেন্ট জ্যাকেট পরতে হবে, সোল্ডার লাইট জ্বালাতেও নির্দেশ

  • এই বিষয়ে কলকাতা পুলিশের ডিসি ট্র‌্যাফিক অরিজিৎ সিনহা শহরের সব ট্র‌্যাফিক গার্ডের ওসিদের এই নির্দেশ দিয়েছেন।

এখন রাতের কলকাতায় নৈশ কার্ফু চলছে। তারপরও থেমে নেই পথ দুর্ঘটনা। একদিন আগেই দেখা গিয়েছে মহম্মদ আলি পার্কের কাছে রাতে লরিতে পিষ্ট হন ট্রাফিক কনস্টেবল। এই ঘটনায় নড়েচড়ে বসেছে ট্র‌্যাফিক বিভাগ এবং লালবাজার। তাই কলকাতা পুলিশ কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এখন থেকে রাস্তায় ডিউটিতে থাকা ট্র‌্যাফিক কনস্টেবল এবং হোমগার্ডদের ফ্লুরোসেন্ট জ্যাকেট পরা বাধ্যতামূলক করা হবে।

এই মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনার পর ফ্লুরোসেন্ট জ্যাকেট এবং রাতে ডিউটিতে থাকা সার্জেন্টদের কাঁধের কাছে ইউনিফর্মে লাগানো সোল্ডার লাইট জ্বালিয়ে রাখার নির্দেশ জারি হচ্ছে। এই বিষয়ে কলকাতা পুলিশের ডিসি ট্র‌্যাফিক অরিজিৎ সিনহা শহরের সব ট্র‌্যাফিক গার্ডের ওসিদের এই নির্দেশ দিয়েছেন। রাতের শহরে পথদুর্ঘটনা এবং ট্র‌্যাফিক পুলিশকে পিষে দেওয়ার ঘটনায় তোলপাড় হয়ে গিয়েছে।

কিন্তু কেন এই নির্দেশিকা? লালবাজার সূত্রে খবর, সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ ও এমজি রোডের সংযোগস্থলে রাতে যে ঘটনা ঘটেছিল তার তদন্তে নেমে জানা গিয়েছে, শীতের রাতে কুয়াশায় দৃশ্যমানতা কম থাকায় লরিচালক ওই ট্র‌্যাফিক কনস্টেবলকে দেখতেই পাননি। ফলে লরির চালক পিষে দেয় জোড়াবাগান ট্র‌্যাফিক গার্ডের ওই পুলিশকে। তাই এই ফ্লুরোসেন্ট জ্যাকেট ও সোল্ডার লাইট ট্রাফিক পুলিশ ব্যবহার করলে এই ধরনের দুর্ঘটনা এড়ানো যাবে।

যদিও কলকাতা পুলিশের একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, এটা কোনও নতুন নির্দেশিকা নয়। আগেও এই নির্দেশিকা ছিল। কিন্তু ডিউটিরত ট্র‌্যাফিক পুলিশ কর্মীরা এই নির্দেশিকা মেনে চলছিলেন না। তাই নতুন করে আবার নির্দেশ দেওয়া হল। পুলিশ কমিশনার বিনীত গোয়েলের উপস্থিতিতে জোড়াবাগান ট্র‌্যাফিক গার্ডে মৃত কনস্টেবল মহম্মদ নাসিরুদ্দিনকে গান স্যালুট দেওয়া হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দেওযা হয়েছে।

বন্ধ করুন