মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

আমাকে তো একবার বলতে পারত, ইস্ট - ওয়েস্ট মেট্রোর উদ্বোধন নিয়ে আক্ষেপ মমতার

  • বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ওনার এটা পাওনা ছিল।

তাঁকে না-জানিয়ে ইস্ট – ওয়েস্ট মেট্রোর উদ্বোধন করায় তিনি আহত বলে দাবি করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন তিনি বলেন, ‘ছবি ছাপতে বলিনি। একটা খবর তো দিতে পারত।’

বৃহস্পতিবার উদ্বোধন হয়েছে কলকাতার ইস্ট – ওয়েস্ট মেট্রো পরিষেবা। বিধাননগর সেক্টর ফাইটে এক অনুষ্ঠানে পরিষেবার উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। বুধবার রাজ্য সরাকারের দাবি ছিল, অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকে। এর পরই অনুষ্ঠান বয়কটের ঘোষণা করে তৃণমূল।

বৃহস্পতিবার মমতার বক্তব্য খণ্ডন করে মেট্রো কর্তৃপক্ষ জানায়, বুধবারই চিঠি পাঠিয়ে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে। রেলমন্ত্রীর নির্দেশে বৃহস্পতিবার KMRCL-এক আধিকারিক সশরীরে নবান্নে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সচিবের কাছে আমন্ত্রণ পত্র পৌঁছে দেন। ফলে আমন্ত্রণ না জানানোর অভিযোগ ঠিক নয়।

এর পরই বদলে যায় তৃণমূলের বয়ান। জানানো হয়, তাঁকে না জানিয়ে উদ্বোধনের দিনক্ষণ ঠিক করায় ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী। সেজন্য অনুষ্ঠান বয়কট করতে চলেছে তারা। এসবের মধ্যেই বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ওনার এটা পাওনা ছিল। ২০০৯ সালে টালিগঞ্জ থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত মেট্রোর উদ্বোধনের সময় তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানায়নি রেল। তখন রেলমন্ত্রী ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই আজ ওনার অভিযোগ নয়, আক্ষেপ করার দিন।

শুক্রবার বিধানসভায় আক্ষেপের সুরে মমতা বলেন, ‘তখন ইউপিএ সরকারে ছিলাম। কলকাতার মেট্রো প্রকল্পের জন্য কত কষ্ট করে টাকা জোগাড় করেছি। ছবি ছাপতে বলিনি। একটা খবর তো দিতে পারত।’ এর পরই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মেট্রোর উদ্বোধনে ছবি না থাকায় তাঁর কোনও আক্ষেপ নেই। মানুষ জানে মেট্রোর জন্য তিনি কী করেছেন।

বলে রাখি, ইউপিএ সরকারের রেলমন্ত্রী থাকাকালীন কলকাতায় ৪টি মেট্রো প্রকল্পে ছাড়পত্র দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার মধ্যে একটিরও কাজ এখনো সম্পূর্ণ হয়নি।



বন্ধ করুন