বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > Patuli: বাড়ির সামনে বসেছিল মদের আসর, প্রতিবাদ করতেই দম্পতিকে মারধর খাস কলকাতায়

Patuli: বাড়ির সামনে বসেছিল মদের আসর, প্রতিবাদ করতেই দম্পতিকে মারধর খাস কলকাতায়

পাটুলি থানা। 

আক্রান্ত দম্পতির নাম হল স্বামী বিশাল চক্রবর্তী এবং স্ত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী। তাদের অভিযোগ, গতকাল রাত ১২টা থেকে সাড়ে ১২টা নাগাদ তাদের বাড়ির সামনে মদের আসর বসিয়েছিল সুব্রত দাস নামে এক যুবক। তার সঙ্গে আরও দুজন ছিল।

বাড়ির সামনে বসেছিল মদের আসর। তার প্রতিবাদ করতে গিয়ে চলল দুষ্কৃতী তাণ্ডব। মারধর করা হল দম্পতিকে। এমনকি খুনের হুমকিও দেওয়ার অভিযোগ উঠল। এমন ঘটনা ঘটল খাস কলকাতার পাটুলিতে। এই ঘটনার পরেই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন পাটুলির ওই দম্পতি। ঘটনায় তারা পাটুলি থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন।

ছেলে ধরা সন্দেহে ৬ জনকে আটকে মার, পুলিশকে বাধা গ্রামবাসীদের, রণক্ষেত্র তারকেশ্বর

আক্রান্ত দম্পতির নাম হল স্বামী বিশাল চক্রবর্তী এবং স্ত্রী সুদীপ্তা চক্রবর্তী। তাদের অভিযোগ, গতকাল রাত ১২টা থেকে সাড়ে ১২টা নাগাদ তাদের বাড়ির সামনে মদের আসর বসিয়েছিল সুব্রত দাস নামে এক যুবক। তার সঙ্গে আরও দুজন ছিল। মোট তিনজন মিলে মদ্যপানের আসরে হই হুল্লোড় শুরু করে দেয়। জোরে গান বাজানো শুরু করে। ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায় তাদের অন্য জায়গায় গিয়ে মদ্যপান করতে বলেন সুদীপ্তা চক্রবর্তী। তাতেই ঘটে বিপত্তি। অভিযোগ এর পরেই সুব্রত দাস এবং বাকিরা দম্পতির বাড়ি লক্ষ্য করে ইট পাথর ছুটতে শুরু করে। তার জেরে দরজার কাজ ভেঙে যায়। ঘটনায় বিশাল এবং সুদীপ্ত প্রতিবাদ জানালে আরও ক্ষুব্ধ হয়ে যায় যুবকরা।

অভিযোগ, এরপরেই তাদের বাড়িতে এসে অভিযুক্তরা ধাক্কাধাক্কি করতে শুরু করে। সুদীপ্তার অভিযোগ, তার স্বামী বিশাল চক্রবর্তীর সম্প্রতি অস্ত্রোপচার হয়েছে। তাছাড়া বাড়িতে একটি বাচ্চাও রয়েছে। তাই তারা অন্য জায়গায় গিয়ে মদ্যপানের জন্য তারা যুবককে অনুরোধ জানিয়েছিলেন। কিন্তু তারা এরজন্য তাদের মারধর করে বলে অভিযোগ। ঘটনার পর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন দম্পতি। পরে সুব্রত দাসকে থানায় নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে পুলিশ। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে সুব্রত দাস। পাল্টা দম্পতির বিরুদ্ধে তিনি মারধরের অভিযোগ জানিয়েছেন। বাকি অভিযুক্তদের খোঁজ পাওয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ।

বন্ধ করুন