বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > অগ্নিনির্বাপনের ব্যবস্থা নেই,তদন্ত হবে,গার্ডেনরিচ অগ্নিকাণ্ডে হুঁশিয়ারি মন্ত্রীর
আগুনে এভাবেই পুড়ে গিয়েছিল গার্ডেনরিচের গুদাম। (নিজস্ব চিত্র )
আগুনে এভাবেই পুড়ে গিয়েছিল গার্ডেনরিচের গুদাম। (নিজস্ব চিত্র )

অগ্নিনির্বাপনের ব্যবস্থা নেই,তদন্ত হবে,গার্ডেনরিচ অগ্নিকাণ্ডে হুঁশিয়ারি মন্ত্রীর

  • মোট ২০টি ইঞ্জিন দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে গিয়েছে আস্ত একটি গুদাম। শনিবার সকালে গার্ডেনরিচের রামনগর এলাকায় ফুড কর্পোরেশনের ওই গোডাউনে আগুন লাগে। বাসিন্দাদের দাবি গুদামের ভেতর দাহ্য পদার্থ বোঝাই ছিল। এর জেরে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। তবে প্রাথমিকভাবে দমকলের ১০টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে আসে। পরে আরও ১০টি ইঞ্জিন আগুন নিয়ন্ত্রণে নামে। 

মোট ২০টি ইঞ্জিন দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। স্থানীয় বাসিন্দারাও আগুন নেভানোর কাজে হাত লাগান। তবে দমকলের কর্মীরাও অত্যন্ত তৎপরতার সঙ্গে আগুন নেভানোর চেষ্টা চালিয়ে যান। কিন্তু আগুনের গ্রাস থেকে শেষ পর্যন্ত গোডাউনটিকে বাঁচানো যায়নি। আগুনে কোনও হতাহতের খবর না থাকলেও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।এদিকে এর সঙ্গেই প্রশ্ন উঠছে গোডাউনে অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা কেমন ছিল। ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন খোদ দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা নিয়ে মুখ খুলেছেন তিনি। দমকলমন্ত্রী বলেন, ‘এখানে অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা নেই। বার বার সবাইকে বলেছি অগ্নিনির্বাপনের নিজস্ব ব্যবস্থা রাখতে। সকাল থেকে দমকল, পুলিশ কাজ করছে। কিন্তু এটাই সৌভাগ্যের যে কোনও জীবনহানি হয়নি। কিন্তু অনেক ক্ষয়ক্ষতি হল। দাহ্যবস্তু থাকার জন্য আগুন এতটা বেড়ে যায়।’ তবে দমকল দেরিতে আসার অভিযোগ তিনি মানতে চাননি। অন্যদিকে তিনি বলেন, ‘শুধু জায়গার ভাড়া দিলে হবে, সঙ্গে জায়গাগুলি রক্ষণাবেক্ষণও করতে হবে। কোথা থেকে আগুন লেগেছে জানতে ঘটনার নির্দিষ্ট তদন্ত হবে।’ 

 

বন্ধ করুন