বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > কলকাতা > ‘‌আমরা সফল হয়েছি’‌, বুর্জ খলিফা নিয়ে সব বিতর্ক উড়িয়ে দিলেন সুজিত বসু
এই বছরের সবচেয়ে আকর্ষণীয় পুজো বুর্জ খলিফা।
এই বছরের সবচেয়ে আকর্ষণীয় পুজো বুর্জ খলিফা।

‘‌আমরা সফল হয়েছি’‌, বুর্জ খলিফা নিয়ে সব বিতর্ক উড়িয়ে দিলেন সুজিত বসু

  • এই বছরের সবচেয়ে আকর্ষণীয় পুজো বুর্জ খলিফা। সেখানের আলোর ঝলকানি নিয়ে তিনজন পাইলটের অভিযোগ জমা পড়ে।

কলকাতা বিমানবন্দরের পক্ষ থেকে নালিশ ঠোকা হয় বিধাননগর থানায়। তার পরই আলো নিভেছিল হাইভোল্টেজ দুর্গাপুজোর। কারণ এই পুজোমণ্ডপের আলোর ঝলকানিতে অসুবিধা হচ্ছিল বিমান অবতরণে। হ্যাঁ, পুজোটির থিম বুর্জ খলিফা। বিধায়ক তথা মন্ত্রী সুজিত বসুর পুজো। যেখানের স্পট লেজার লাইট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এবার তা নিয়ে মুখ খুললেন মন্ত্রী সুজিত বসু।

এই বছরের সবচেয়ে আকর্ষণীয় পুজো বুর্জ খলিফা। সেখানের আলোর ঝলকানি নিয়ে তিনজন পাইলটের অভিযোগ জমা পড়ে। তখন কলকাতা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ই–মেইল করে বিধাননগর থানায় অভিযোগ জানায়। তারপর মণ্ডপের আলো নিভিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মহাসপ্তমীর রাত থেকেই বুর্জ খলিফা’‌র লেজার লাইট বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তবে এবার সমস্ত অভিযোগকে ফুৎকারে উড়িয়ে দিলেন দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। তিনি সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘‌উপরের লাইটটা বন্ধ রেখেছি। কারণ বহু মানুষ ওই লাইটটি দেখার জন্য দাঁড়িয়ে যাচ্ছেন। অন্য কোনও কারণ নেই। কোনওভাবেই যাতে ভিড় না হয় সেই জন্যই এই পদক্ষেপ। আমরা নতুন ভাবনা সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে চেয়েছিলাম। আমরা সফল হয়েছি।’‌

উল্লেখ্য, এই পুজোকে ঘিরে বিস্তর বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এখানে কোভিড–বিধি মানা হয়নি বলে অভিযোগ ওঠে। তারপর প্রতিমার গায়ে ৪৫ কেজি সোনার গয়না রয়েছে বলে বিশাল পুলিশবাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছে। সর্বশেষ অভিযোগ, এই পুজোমণ্ডপের স্পট লাইটের জন্য বিমান অবতরণে সমস্যা হচ্ছে। উপরের লাইট ছাড়া এখন সবই জ্বলছে বলে খবর।

বন্ধ করুন