বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > রক্তদান শিবিরে আমন্ত্রণ ইস্যুতে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, তপ্ত করিমপুর
 রক্তদান শিবিরে আমন্ত্রণ ইস্যুতে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, তপ্ত করিমপুর। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
 রক্তদান শিবিরে আমন্ত্রণ ইস্যুতে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, তপ্ত করিমপুর। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

রক্তদান শিবিরে আমন্ত্রণ ইস্যুতে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, তপ্ত করিমপুর

  • তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে তপ্ত নদিয়ার করিমপুর, রক্তদান শিবিরে আমন্ত্রণ ইস্যুতে সংঘর্ষ।

রক্তদান শিবিরে আমন্ত্রণ কেন জানানো হয়নি ব্লক সভাপতিকে? এই ইস্যুতে বিবাদের সূত্রপাত হতেই নিমেষে তা তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের চেহারা নিয়ে নেয় নদিয়ার করিমপুরে। জানা যায়, করিমপুরের জামতলা এলাকায় একটি স্থানীয় ক্লাবের উদ্যোগে, রক্তদান শিবির আয়োজন করা হয়েছিল। এই আয়োজনে করিপুরের বিধায়ক বিমলেন্দু সিংহ রায় কার্যত নেতৃত্ব দেন। রক্তদান শিবিরে আমন্ত্রণ জানানো হয়, মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস সহ জেলার বহু প্রথম সারির নেতাদের। তবে অভিযোগ, আমন্ত্রণ জানানো হয়নি, ব্লক সভাপতি তরুণ সাহাকে। সূত্রের খবর, তাঁকে আমন্ত্রণ না জানানো নিয়েই যাবতীয় বচসার সূত্রপাত।

এদিকে, রক্তদান শিবিরে জেলা নেতৃত্ব উপস্থিত হতেই নেতাদের সামনে তৃণমূল ছাত্রপরিষদের কয়েকজন প্রথমে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। পরে তাঁরা হাতে বাঁশ রড, লাঠি নিয়ে উপস্থিত অন্যান্য তৃণমূল কর্মীদের উপর চড়াও হন বলে অভিযোগ। পরিস্থতিতি ক্রমেই হাতের বাইরে যেতে থাকে। কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় এলাকা। মুহূর্তে আহত হয়ে পড়েন কয়েকজন। আহতদের স্থানীয় করিমপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে, পরিস্থিতি নিয়ে জেলা তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব বেশ অস্বস্তিতে রয়েছে। বিধায়ক বিমলেন্দু সিংহ রায় বলেছেন, এই ঘটনাকে সমর্থন করা যায় না। গোটা ঘটনাকেই 'আমাদের নিজেদের ব্যাপার' বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। তবে আগামী দিনে যাতে এমন ঘটনা না ঘটে সেদিকে নজর রাখার বার্তা দিয়েছেন করিমপুরের বিধায়ক।

এদিকে, ব্লক সভাপতি তরুণ সাহার বক্তব্য, 'কয়েকজন রাজনৈতিক নেতা' এলাকায় এসে দলকে ভাগ করছেন। এই বিভাজনের নীতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়রা চান না বলে বক্তব্য রাখেন তিনি। একই সঙ্গে ব্লক সভাপতি জানান, গোটা ঘটনার প্রতিবাদে সামিল হয়ে তাঁরা রাত পোহালেই একটি ধিক্কার মিছিলে পা মেলাবেন। ব্লক সভাপতির দাবি, সেই মিছিলে বহু মানুষই যোগ দেবেন। উল্লেখ্য, নদিয়ার আগে বাসন্তীতে কয়েকদিন আগেই রক্তদান শিবিরের অনুষ্ঠানকে ঘিরে ধুন্ধুমার পরিস্থিতি তৈরি হয়। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীতে তৃণমূলের কোন্দল মেটানোর মঞ্চ হিসাবেই ওই রক্তদান শিবিরের আয়োজনকে অনেকেই চিহ্নিত করেন। সেই জায়গায় এই কোন্দল মেটানোর মঞ্চে ফের একবার নতুন করে অশান্তির ঘটনা ঘিরে রীতিমতো উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়। শেষে মঞ্চ থেকে নেতৃত্বের তরফে কড়া বার্তা যায়। তবে পরিস্থিতি হাতের বাইরে যেতেই ঘটনাস্থলে হাজির হয় পুলিশ।

বন্ধ করুন