বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ২০ দিন হাসপাতালে হাঁদা ভোঁদা, বাঁটুল-এর স্রষ্টা নারায়ণ দেবনাথ, চিন্তায় চিকিৎকরা
ভালো নেই নারায়ণ দেবনাথ।
ভালো নেই নারায়ণ দেবনাথ।

২০ দিন হাসপাতালে হাঁদা ভোঁদা, বাঁটুল-এর স্রষ্টা নারায়ণ দেবনাথ, চিন্তায় চিকিৎকরা

  • ২৪ ডিসেম্বর থেকে মিন্টো পার্কের কাছে এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি আছেন তিনি।

৯৭ বছর বয়স হয়েছে কার্টুনিস্ট নারায়ণ দেবনাথের। গত ২০ দিন ধরে তিনি ভর্তি রয়েছেন মিন্টো পার্কের কাছের এক বেসরকারি হাসপাতালে। তবে, এখনও শারীরিক অবস্থার সেরকম উন্নতি না হওয়ায় চিন্তায় চিকিৎসামহল।

গত ২৪ ডিসেম্বর এই হাসপাতালে ভর্তি করা হয় প্রবীন কার্টুনিস্টকে। বর্ষীয়ান মানুষটার চিকিৎসায় এর আগেও পাশে দাঁড়িয়েছে রাজ্য সরকার। তার জন্য চিকিৎসকদের একটি বিশেষ দলও গঠন করা হয়েছে। তাঁরাই পর্যবেক্ষণে রেখেছেন নারায়ণবাবুকে। 

জানা গিয়েছে, শরীরে সোডিয়াম পটাশিয়ামের ভারসাম্যহীনতা তৈরি হয়েছে। ফলে রক্ত দিতে হচ্ছে। শ্বাসকষ্টের সমস্যাও হয়েছে। এছাড়া বার্ধক্যজনিত আরও নানা ধরনের সমস্যায় ভুগছেন নারায়ণ দেবনাথ। 

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের জানুয়ারি মাসেও নারায়ণবাবুকে ভর্তি করা হয়েছিল হাসপাতালে। তখনও অবস্থার বেশ অবনতি হয়েছিল তাঁর। তখন স্মৃতিশক্তির পরীক্ষা করতে সাদা কাগজ তুলে দেওয়া হয় কার্টুনিস্টের হাতে। আর ফটাফট সাদা কাগজে বাঁটুলকে। ছোটদের কাঁছে এখনও তাঁর সৃষ্টিতে তৈরি ‘হাঁদা ভোঁদা’, ‘বাঁটুল দি গ্রেট’, ‘নন্টে ফন্টে’, ‘বাহাদুর বেড়াল’, ‘ডানপিটে খাঁদু আর তার কেমিক্যাল দাদু’র জনপ্রিয়তা আকাশছোঁয়া। 

২০১৩ সালে সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কার পান নারায়ণ দেবনাথ। আর ২০২১ সালে পান পদ্মশ্রী। যদিও এই নিয়েও কিছুদিন আগে ক্ষোভপ্রকাশ করেছিল নারায়ণ দেবনাথের পরিবারের সদস্যরা। ১০ মাস পেরোলেও ‘পদ্মশ্রী’ হাতে পাননি তিনি।

বন্ধ করুন