বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > শাশুড়ি সেজেছিলেন আগেই, তবে প্রিয়াঙ্কার মা হতে কেন আপত্তি ছিল শেফালির?
'দিল ধড়ক নে দো' এর গোটা টিমের সঙ্গে শেফালি। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)
'দিল ধড়ক নে দো' এর গোটা টিমের সঙ্গে শেফালি। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)

শাশুড়ি সেজেছিলেন আগেই, তবে প্রিয়াঙ্কার মা হতে কেন আপত্তি ছিল শেফালির?

  • এর আগে বড়পর্দায় প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার শাশুড়ির ভূমিকায় অভিনয় করলেও 'দিল ধড়কনে দো' ছবিতে প্রিয়াঙ্কার মা হওয়ার প্রস্তাবে আপত্তি ছিল শেফালি শাহ-এর। কেন ছিল সেকথাও নিজেই জানিয়েছিলেন এই বলি-অভিনেত্রী।

মঙ্গলবার নিজের ৪৯তম জন্মদিনের কেক কাটবেন শেফালি শাহ। চলতি বছর শেফালি অভিনীত 'দিল্লি ক্রাইম' ওয়েব সিরিজ ভূয়সী প্রশংসিত হয়েছে দর্শক ও ছবি সমালোচক দুইই তরফেই। নেটফ্লিক্সে স্ট্রিমিং হওয়া এই ওয়েব সিরিজ পৌঁছে গেছিল এমি পুরস্কারের দরবার পর্যন্ত। এই ওয়েব সিরিজ ছাড়াও একাধিক মাল্টিস্টারার সুপারহিট ছবিতে মুখ দেখিয়েছেন এই অভিনেত্রী। কে ভুলতে পারে 'দিল ধড়কনে  দো' ছবিতে শেফালি অভিনীত 'নীলম মেহরা'-র নিচু তারে বাঁধা সেই অভিনয়?

'দিল ধড়ক নে দো'-র পোস্টারে বাকি অভিনেতা,অভিনেত্রীদের সঙ্গে শেফালি। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)
'দিল ধড়ক নে দো'-র পোস্টারে বাকি অভিনেতা,অভিনেত্রীদের সঙ্গে শেফালি। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)

তবে এক সাক্ষাৎকারে শেফালি নিজেই জানিয়েছেন 'দিল ধড়কনে দো' ছবিতে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করতে পথে তাঁর বেশ আপত্তি ছিল। এই প্রস্তাব গ্রহণ করবেন কি না সে বিষয়েও দ্বিধা ছিল তাঁর। অথচ এর আগেও প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি।এমনকি 'ওয়াক্ত' ছবিতে অক্ষয়কুমারের মা পর্যন্ত সেজে ফেলেছিলেন তিনি। ওই একই ছবিতেই প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার শাশুড়ির চরিত্রেও দেখা গেছিল শেফালিকে। তবে বলি-নায়িকার মায়ের চরিত্রে অভিনয় করতে কেন গররাজি ছিলেন এই অভিনেত্রী? সে জবাবও নিজেই দিয়েছেন তিনি। কারণ হিসেবে শেফালি জানিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা আর তাঁর মধ্যে বয়সের ফারাক বিরাট কিছু নয়। মা সাজার মতো তো নয়ই! সেসব ভেবেই প্রথমদিকে সঙ্কোচ করছিলেন তিনি।

পরিচালক জোয়া আখতারের সঙ্গে 'দিল ধড়ক নে দো' এর গোটা টিম। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)
পরিচালক জোয়া আখতারের সঙ্গে 'দিল ধড়ক নে দো' এর গোটা টিম। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)

পাশাপাশি আরও জানিয়েছেন 'দিল ধড়কনে দো'-র চিত্রনাট্য শুনে পুরো চমকে গেছিলেন তিনি। স্বামী তথা পরিচালক-প্রযোজক বিপুল অমৃতলাল শাহ-কেও সেকথা বলেছিলেন শেফালি। চিত্রনাট্য ভালো লাগার এবং নিজের দ্বিধার কথাও। শেফালির আক্ষেপ ছিল অনেক অল্প বয়স থেকেই মঞ্চে হোক কিংবা পর্দায় 'মা'-এর চরিত্রে টাইপকাস্ট হয়ে যাচ্ছেন তিনি। মাত্র ৩০ বছর বয়সেই একধারে অমিতাভের স্ত্রী ও অক্ষয়ের মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি 'ওয়াক্ত' ছবিতে। পর্দায় তাঁকে যে সেই ভূমিকায় দুর্দান্ত মানিয়েছিল সেকথা বলাই বাহুল্য। তবে শেষপর্যন্ত স্বামীর কথা শুনে মনের সব দ্বন্দ কেটে যায় তাঁর। প্রধানত বিপুলের উৎসাহেই 'দিল ধড়কনে দো'-র প্রস্তাব গ্রহণ করেছিলেন শেফালি।

উল্লেখ্য, এই ছবিতে শেফালির স্বামীর ভূমিকায় দেখা গেছিল অনিল কাপুরকে এবং প্রিয়াঙ্কার পাশাপাশি আরও এক সন্তানের চরিত্রে দর্শকদের সামনে হাজির হয়েছিলেন রণবীর সিং। অভিনেত্রীর হিসেবে যে কোনও ভুল ছিল না সেকথা প্রমাণ করেছিল ছবির বক্স অফিসের হিসেব এবং সমালোচকদের অকুন্ঠ তারিফ।

 

বন্ধ করুন