কামরার আপার বার্থে শিবের ছবি রেখে পুজোর ব্যবস্থা স্থায়ী নয়, দাবি আইআরসিটিসির।
কামরার আপার বার্থে শিবের ছবি রেখে পুজোর ব্যবস্থা স্থায়ী নয়, দাবি আইআরসিটিসির।

রেলকামরায় শিবমন্দিরের ব্যবস্থা অস্থায়ী, জানাল কোণঠাসা আরসিটিসি

  • মহাকাল এক্সপ্রেসের কামরায় শিবের জন্য আসন সংরক্ষণ অস্থায়ী, সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হওয়ার পরে ব্যাখ্যা প্রকাশ করল আইআরসিটিসি।

সদ্য চালু হওয়া মহাকাল এক্সপ্রেসের কামরায় শিবের জন্য আসন সংরক্ষণ অস্থায়ী, সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলড হওয়ার পরে এই ব্যাখ্যা দিল আইআরসিটিসি।

রবিবার বারাণসীতে আইআরসিটিসি নিয়ন্ত্রিত মহাকাল এক্সপ্রেসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই ট্রেনের একটি বার্থ শিবের জন্য সংরক্ষিত রাখা হয়েছে বলে জানায় নিয়ন্ত্রণ সংস্থা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা যায়, ট্রেনের বি৫ কোচের ৬৪ নম্বর আসনটি শিবের জন্য সংরক্ষিত রয়েছে। আপার সাইড বার্থের সেই আসনটি রঙিন কাগজ সেঁটে সাজানো হয়েছে। বার্থের উপরে রাখা শিবের ছবিতে মালা পরানো হয়েছে। সেই ছবি পুজো করতে দেখা যায় রেলকর্মীদের।

সংবাদসংস্থা পিটিআইকে উত্তর রেলের মুখপাত্র দীপক কুমার বলেন, 'শিব ঠাকুরের জন্য একটি আসন সংরক্ষিত রাখা হয়েছে। সেটি ফাঁকা রাখা হয়েছে। একটি মন্দিরও আঁকা হয়েছে, যাতে মানুষ বুঝতে পারেন উজ্জ্বয়নের মহাকালের জন্য আসনটি সংরক্ষিত রাখা হয়েছে।'

এদিকে আইআরসিটিসির এই কীর্তি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের ঝড় ওঠে। টুইটারে অনেকে রেল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে টিপ্পনি কেটে সমালোচনা করেন। বেগতিক দেখে পরের দিনই বিষয়টি খোলসা করতে বিবৃতি দিয়েছে আইআরসিটিসি।

মঙ্গলবার সংস্থার তরফে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে, ‘মহাকাল এক্সপ্রেসের কামরায় শিবপুজোর ব্যবস্থা অস্থায়ী। কাজে সাফল্য পেতে ঈশ্বরের আশীর্বাদের জন্য একটি কামরার আপার বার্থে শিবের ছবি রেখে পুজো করেন ট্রেনের কর্মীরা। এই ব্যবস্থা স্থায়ী নয়, একেবারেই অস্থায়ী।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘শুধুমাত্র উদ্বোধনী ট্রেনসফরেই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। এই সফর সাধারণ যাত্রীদের জন্য ছিল না। আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে চালু হতে চলা বাণিজ্যিক সফরে কখনও এমন কোনও আসন বা বার্থ কোনও দেবদেবীর নামে সংরক্ষণ করা হবে না।’

বন্ধ করুন