বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ‘‌কিছু লোক দেশপ্রেম এবং বলিদান বোঝে না’‌, মোদী সরকারকে আক্রমণ রাহুলের
কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী (ছবি সৌজন্যে পিটিআই) (PTI)

‘‌কিছু লোক দেশপ্রেম এবং বলিদান বোঝে না’‌, মোদী সরকারকে আক্রমণ রাহুলের

  • তাঁর সরকারের সিদ্ধান্তেই ৫০ বছর পরে নিভতে চলেছে নয়াদিল্লির ইন্ডিয়া গেটের অমর জওয়ান জ্যোতির অনির্বাণ শিখা।

বাংলার ট্যাবলোর পর এবার জওয়ানদের উদ্দেশ্যে তৈরি শিখা কার্যত নিভিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আর তা নিয়ে নরেন্দ্র মোদীর সরকারকে তোপ দেগেছেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধী। পাঁচ রাজ্যের ভোটের মুখে এই নিয়ে বেজায় অস্বস্তিতে পড়েছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। কারণ তাঁর সরকারের সিদ্ধান্তেই ৫০ বছর পরে নিভতে চলেছে নয়াদিল্লির ইন্ডিয়া গেটের অমর জওয়ান জ্যোতির অনির্বাণ শিখা। শুক্রবার এই অগ্নিশিখা স্থানান্তরিত হচ্ছে নবনির্মিত ‘ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়াল’ ভবনে।

জানা গিয়েছে, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধের পর শহিদ ভারতীয় জওয়ানদের স্মৃতিতে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী প্রতিষ্ঠা করেছিলেন অমর জওয়ান জ্যোতি। ১৯৭২ সালের ২৭ জানুয়ারি ইন্দিরা গান্ধী এই স্মৃতিসৌধের উদ্বোধন করেছিলেন। যেখানে সর্বক্ষণ জ্বলে আগুনের শিখা। ঠিকানা বদল করে এবার তা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ‘ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়াল’ ভবনে। সুতরাং সেখানে তা সারাক্ষণ জ্বলবে না। আর এটা নিয়েই টুইট করেছেন রাহুল গান্ধী।

ঠিক কী লিখেছেন রাহুল গান্ধী?‌ এদিন তিনি টুইটে লেখেন, ‘‌এটা অত্যন্ত দুঃখের কথা যে, আমাদের বীর জওয়ানদের জন্য যে অমর জওয়ান জ্যোতি জ্বলন্ত, সেটা আজ নিভিয়ে দেওয়া হবে। কিছু লোক দেশপ্রেম এবং বলিদান বোঝে না। তাতে কিছু যায় আসে না। আমরা আমাদের সেনাদের জন্য অমর জওয়ান জ্যোতি আবার প্রজ্বলিত করব।’‌

উল্লেখ্য, স্বাধীনতার পর থেকে শহিদ সেনা–জওয়ানরা দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন তাঁদের স্মৃতিতেই ৪০ একর জমিতে তৈরি হয়েছে এই যুদ্ধ–স্মারক। এখানে চারটি চক্রের আকারে তৈরি হয়েছে দেওয়াল। এই চক্র চারটির নাম—অমর চক্র, বীরতা চক্র, ত্যাগ চক্র এবং রক্ষক চক্র। চক্রের দেওয়ালগুলিতে লেখা, ২৫ হাজার ৯৪২ জন নিহত সেনার নাম। এবার তা স্থানান্তরিত হচ্ছে। সুতরাং প্রশ্নের মুখে ‘অমর জওয়ান জ্যোতি’।

বন্ধ করুন