বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > রাজস্থানে নির্মীয়মান মন্দিরের ভিতে ১১ হাজার লিটার দুধ-দই-ঘি ঢাললেন গুজ্জররা
রাজস্থানের ঝালাওয়ার জেলায় গুজ্জরদের দেবনারায়ণ মন্দিরের ভিতপুজোয় ঢালা হল ১১,০০০ লিটার দুধ, দই ও দেশি ঘি।
রাজস্থানের ঝালাওয়ার জেলায় গুজ্জরদের দেবনারায়ণ মন্দিরের ভিতপুজোয় ঢালা হল ১১,০০০ লিটার দুধ, দই ও দেশি ঘি।

রাজস্থানে নির্মীয়মান মন্দিরের ভিতে ১১ হাজার লিটার দুধ-দই-ঘি ঢাললেন গুজ্জররা

  • মোট ১১ হাজার লিটারের মধ্যে ১,৫০০ লিটার ছিল দই এবং এক কুইন্টাল দেশি ঘি। অবশিষ্ট খাঁটি দুধ। ভিতপুজোয় শুধুমাত্র দুগ্ধজাত পণ্যের খরচই দাঁড়িয়েছে দেড় লাখ টাকা।

রাজস্থানে গুজ্জর সম্প্রদায়ের আরাধ্য দেবতা দেবনারায়ণের মন্দিরের ভিতপুজোয় ঢালা হল ১১,০০০ লিটার দুধ, দই ও দেশি ঘি। 

শনিবার ঝালওয়ার জেলার রতলাই এলাকায় ভিতপুজো অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কয়েকশো গুজ্জর সম্প্রদায়ভুক্ত ভক্ত। মন্দির নির্মাণ কমিটির মুখপাত্র রামলাল গুজ্জর জানিয়েছেন, ‘গুজ্জর সম্প্রদায়ের সদস্যদের থেকে আমরা ১১ হাজার লিটার দুধ, দই ও দেশি ঘি সংগ্রহ করেছিলাম। প্রভু দেবনারায়ণের প্রতি উৎসর্গ হিসেবে তাঁর মন্দিরের ভিতপুজোয় তা ব্যবহার করা হয়েছে।’ 

জানা গিয়েছে, মোট ১১ হাজার লিটারের মধ্যে ১,৫০০ লিটার ছিল দই এবং এক কুইন্টাল দেশি ঘি। অবশিষ্ট খাঁটি দুধ। অর্থাৎ, ভিতপুজোয় শুধুমাত্র দুগ্ধজাত পণ্যের খরচই দাঁড়িয়েছে দেড় লাখ টাকা।

রামলাল জানিয়েছেন, গুজ্জরদের মন্দির নির্মাণে দুগ্ধজাত পণ্য ব্যবহারের প্রচলন থাকলেও তা বাধ্যতামূলক নয়। তবে অতীতে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে এই প্রথা তাঁরা পালন করেছেন বলেও জানিয়েছেন রামলাল গুজ্জর। তাঁর দাবি, ঈশ্বরের থেকে প্রাপ্তির তুলনায় এই খরচের কোনও তুলনাই চলে না। তা ছাড়া, গবাদি পশুপালক গুজ্জররা প্রতিদিনের পুজোয় দেবনারায়ণকে দুধ দিয়ে স্নান করান বলেও তিনি জানিয়েছেন।

এই বিশাল পরিমাণ খাদ্যদ্রব্যের এ হেন অপচয় সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘গুজ্জর সম্প্রদায়ের কাছে এ কোনও অপচয় নয়। প্রভু দেবনারায়ণ আমাদের গবাদি পশুর রক্ষাকর্তা। আমাদের যা কিছু উন্নতি তাঁরই কৃপায়। এই কারণেই ভিতপুজোয় আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী তাঁকে দুগ্ধজাত পণ্য উৎসর্গ করেছি।’

জানা গিয়েছে, মোট এক কোটি টাকা ব্যয়ে আগামী দুই বছরের মধ্যে সম্পূর্ণ হবে দেবনারায়ণ মন্দির নির্মাণ।

বন্ধ করুন