বাংলা নিউজ > ঘরে বাইরে > ভারত-চিন সীমানা নিয়ে মার্কিন জেনারেলের বক্তব্যে জোর সমালোচনা চিনের! এল 'ধারালো' বার্তা
চিনের জবাব আমেরিকাকে। REUTERS/Carlos Garcia Rawlins/File Photo (REUTERS)

ভারত-চিন সীমানা নিয়ে মার্কিন জেনারেলের বক্তব্যে জোর সমালোচনা চিনের! এল 'ধারালো' বার্তা

  • আমেরিকার বক্তব্য ছিল, চিন যেভাবে সীমান্তে নিজেদের নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে তা সতর্কতামূলক। পাল্টা চিনের দাবি, মার্কিন জেনারেলের কথায় হিমালয়ের কোলের এলাকায় দুই দেশের দ্বন্দ্বের আগুনে ঘি ঢালা হচ্ছে। বিষয়টির কড়া জবাবে বেজিং জানিয়েছে, 'এই সীমান্ত সমস্যা দুটি দেশের (ভারত ও চিন)। আর দুটি দেশেরই ক্ষমতা ও যোগ্যতা রয়েছে এই সমস্যা কথা বলে মিটিয়ে ফেলার।'

সুতীর্থ পত্রনবীশ

ভারত-চিন সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন মুলুকের কোনও বক্তব্যকেই কার্যত ছেড়ে কথা বলছে না চিন। সদ্য, মার্কিন জেনারেল চার্লস এস ফ্লাইন বলেছিলেন, যেভাবে সীমান্তে চিন নির্মাণ কাজ চালাচ্ছে তাতে তাঁকে সতর্ক করা হয়েছে। আর এই বক্তব্যের ধারালো জবাব এবার এল চিনের তরফে।

আমেরিকার বক্তব্য ছিল, চিন যেভাবে সীমান্তে নিজেদের নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে তা সতর্কতামূলক। পাল্টা চিনের দাবি, মার্কিন জেনারেলের কথায় হিমালয়ের কোলের এলাকায় দুই দেশের দ্বন্দ্বের আগুনে ঘি ঢালা হচ্ছে। বিষয়টির কড়া জবাবে বেজিং জানিয়েছে, 'এই সীমান্ত সমস্যা দুটি দেশের (ভারত ও চিন)। আর দুটি দেশেরই ক্ষমতা ও যোগ্যতা রয়েছে এই সমস্যা কথা বলে মিটিয়ে ফেলার।' একধাপ এগিয়ে চিনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ঝাও লিন বলেন, 'কিছু মার্কিন অফিসাররা আঙুল দেখিয়ে আগুনে ঘি ঢালতে চাইছেন। এটি অত্যন্ত ঘৃণ্য পদক্ষেপ। আশা করব আমরা এলাকার শান্তি রক্ষায় সমর্থ হব।' উল্লেখ্য, এর আগে লাদাখের সীমান্ত পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন জেনারেল চার্লস এস ফ্লাইন মন্তব্য করেন। Video:বেলুড় মঠে প্রবেশ করে কী ঘুরে দেখলেন বিজেপি সভাপতি জেপি নাড্ডা?

চিন বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলে জানিয়েছে, আস্তে আস্তে পরিস্থিতি আগের থেকে অনেকটাই স্থিতাবস্থার দিকে যাচ্ছে লাদাখ সহ সীমান্ত ইস্যুতে। বহু জায়গায় ডিসএনগেজমেন্টের পদক্ষেপ হয়েছে, আর তা নিয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেন ঝাও। এর আগে, ভারতে এসে মার্কিন জেনারেল ফ্লাইন বলেন, 'চিনের গতিবিধি চোখ খুলে দিচ্ছে। পিএলএর ওয়েস্টার্ন কমান্ডের কিছু নির্মাণ কাজ সতর্কবার্তাবাহক। প্রশ্ন করা হোক, কেন এমন কাজ, আর তাদের উদ্দেশ্য কী? ' উল্লেক্।, ২০২০ সালের ৫ মে লাদাখের বুকে চিনের আগ্রাসন দেখা যায়। যারপর গালওয়ানে প্রবল সংঘর্ষে চিনকে জবাব দেয় ভারত। শহিদ হন বহু ভারতীয় সেনা। এরপর থেকেই সীমান্তে চাপা উত্তেজনা রয়েছে। দেখা যাচ্ছে, ভারত-চিন সীমানার ওপারে বেজিং ক্রমাগত তাদের নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

বন্ধ করুন