বাড়ি > ময়দান > পেশাদার টেনিসে ব্রায়ান ব্রাদার্স যুগের অবসান, অসংখ্য নজির গড়ে অবসর বব-মাইক জুটির
বব ও মাইক ব্রায়ান। ছবি- গেটি ইমেজেস।
বব ও মাইক ব্রায়ান। ছবি- গেটি ইমেজেস।

পেশাদার টেনিসে ব্রায়ান ব্রাদার্স যুগের অবসান, অসংখ্য নজির গড়ে অবসর বব-মাইক জুটির

  • টেনিসের এমন কোনও বড় ট্রফি নেই, যা জেতেননি ব্রায়ান ভাইরা।

জুটিতে প্রাপ্তির ভাঁড়ার পূর্ণ। এমন কোনও মাইলস্টোন নেই, যেটা ছুঁয়ে দেখেননি দুই ভাই। এখনও ছন্দে রয়েছেন আগের মতোই। তবে অযথা কেরিয়ারকে টেনে নিয়ে যেতে চান না ব্রায়ান ভাইরা। যুক্তরাষ্ট্র ওপেনের আগেই পেশাদার টেনিস থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়ে দিলেন বব ও মাইক। অর্থাৎ, পেশাদার টেনিসে ব্রায়ান ব্রাদার্স যুগের অবসান হল।

ইউএস ওপেন শুরুর ঠিক আগেই ২৬ মরশুমের দীর্ঘ পেশাদার কেরিয়ারে দাঁড়ি টেনে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন বব ও মাইক ব্রায়ান। একসঙ্গে জুটি বেঁধে টেনিস সার্কিটে কিংবদন্তি হয়ে ওঠেন দুই মার্কিন তারকা। ১৯৯৫ সালে মেজর টুর্নামেন্টে আত্মপ্রকাশ করার পর থেকে ডাবলস জুটি হিসেবে ১১৯টি খেতাব জিতেছেন ব্রায়ান ভাইরা।

বব ও মাইক একসঙ্গে কোর্টে নেমে জিতেছেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, ফরাসি ওপেন, উইম্বলডন ও যুক্তরাষ্ট্র ওপেন। অর্থাৎ, টেনিসের চারটি মেজর ইভেন্টের খেতাব তাঁদের দখলে রয়েছে। যে ৯টি এটিপি মাস্টার্স ১০০০ ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয় সারা বছর ধরে, কখনও না কখনও সবকটি ইভেন্টেই তাঁরা চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। 

মরশুম শেষের এটিপি ট্যুর ফাইনালসের ট্রফি রয়েছে তাঁদের। রয়েছে অলিম্পিকের গোল্ড মেডেল। ডেভিসকাপ জয়ী আমেরিকা দলের সদস্য ছিলেন দু'জনে। অর্থাৎ, টেনিসের এমন কোনও বড় ট্রফি নেই, যা তাঁদের ক্যাবিনেটে শোভা পাচ্ছে না।

দু'জনের ঝুলিতে রয়েছে রেকর্ড ১৬টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম ট্রফি। মোট ৩০ বার তারা মেজর ইভেন্টের ফাইনালে ওঠেন। ৫৯ বার এটিপি মাস্টার্স ১০০০ ইভেন্টের ফাইনালে উঠে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন ৩৯ বার। চারটি ট্যুর ফাইনালসের ট্রফি জিতেছেন তাঁরা।

২০০৩ সালে প্রথমবার এক নম্বর ডাবলস জুটির মর্যাদা আদায় করে নেন ব্রায়ান ভাইরা। সব মিলিয়ে ৪৩৮ সপ্তাহ তাঁরা এক নম্বর ডাবলস জুটি হিসেবে কাটিয়েছেন। এক নম্বর হিসেবে তাঁরা ১০টি মরশুমে শেষ করেছেন।

বন্ধ করুন